300X70
শনিবার , ৩০ মার্চ ২০২৪ | ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দূর্নীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আনন্দ ঘর
  4. আনন্দ ভ্রমন
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত খবর
  7. উন্নয়নে বাংলাদেশ
  8. এছাড়াও
  9. কবি-সাহিত্য
  10. কৃষিজীব বৈচিত্র
  11. ক্যাম্পাস
  12. খবর
  13. খুলনা
  14. খেলা
  15. চট্টগ্রাম

পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি, শিক্ষকসহ আটক ৩

প্রতিবেদক
বাঙলা প্রতিদিন২৪.কম
মার্চ ৩০, ২০২৪ ১২:৫৯ পূর্বাহ্ণ

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জে পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি দিতে গিয়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের হাতে এক কলেজ শিক্ষকসহ আটক হয়েছেন ৩ জন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোপালগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মুঈদ চৌধুরী।
ধৃত ব্যক্তিরা হলেন, মুকসুদপুর উপজেলার খাঞ্জাপুর গ্রামের মোঃ ফরিদ মোল্লার ছেলে মোঃ আরমান মোল্লা (১৮), বহু গ্রামের কেশব সরকারের ছেলে প্রদীপ সরকার (১৮) ও বাশবাড়িয়া গ্রামের মোঃ দেলোয়ার হোসেনের ছেলে মোঃ জাহিদুল ইসলাম (৪২)। অভিযুক্ত মোঃ জাহিদুল ইসলাম মুকসুদপুরের একটি বেসরকারি কলেজের শিক্ষক বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।
পরে এ সংক্রান্তে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মোঃ মুঈদ চৌধুরী নিজে বাদী হয়ে গোপালগঞ্জ সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, গত ২৮/০৩/২০২৪ তারিখে গোপালগঞ্জ শেখ হাসিনা স্কুল এন্ড কলেজে পুলিশ কনষ্টেবল নিয়োগ পরীক্ষা কেন্দ্রের কক্ষ নং ২০৪ এর ইনচার্জ হিসাবে জেলা গোয়েন্দা শাখার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মুঈদ চৌধুরী দায়িত্বরত ছিলেন। ওইদিন সকাল সাড়ে ১০ টা‍র সময় পরীক্ষা চলাকালীন পরীক্ষার্থী সনাক্তকরন কালে রোল নং ৫৭১০২৯৮ এর ব্যক্তিকে সন্দেহ হলে তিনি তাহার প্রবেশপত্র যাচাই করে প্রবেশপত্রের ছবি ও পরীক্ষার্থীর চেহারার অমিল পান।
১নং আসামী মোঃ আরমান মোল্লাকে জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায় যে, আর্থিকভাবে লাভের উদ্দেশ্যে ৩নং আসামী মোঃ জাহিদুল ইসলামের সহায়তায় পুলিশ কনষ্টেবল নিয়োগ পরীক্ষায় প্রকৃত পরীক্ষার্থী ২নং আসামী প্রদীপ সরকার এর পরিবর্তে সে লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে। ১নং আসামী মোঃ আরমান মোল্লা আরো জানায় ২নং আসামী প্রদীপ ও ৩নং আসামী জাহিদুল ইসলাম পরীক্ষা কেন্দ্রের বাহিরের গেটে অবস্থান করছে।
তিনি তখন তাৎক্ষনিকভাবে জেলার ঊর্ধ্বতন পুলিশ অফিসারদেরকে বিষয়টি অবগত করে পরীক্ষা কক্ষে দায়িত্বরত অন্যান্য পুলিশ সদস্যদের সহায়তায় ১নং আসামীর মাধ্যমে কৌশলে ২নং ও ৩নং আসামীকে পরীক্ষা কক্ষে হাজির করা হয়। পুলিশ সুপার, গোপালগঞ্জ মহোদয় পরীক্ষা কেন্দ্রের উক্ত কক্ষে উপস্থিত হইয়া দেখিতে পান যে ২নং আসামী প্রদীপ সরকার এর পরিবর্তে ১নং আসামী মোঃ আরমান মোল্লা ভূয়া পরিচয় দিয়ে প্রদীপ সরকারের নাম ব্যবহার করিয়া পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে মর্মে স্বীকার করে।
পুলিশ সুপার আল-বেলী আফিফা পিপিএম ভূয়া পরীক্ষার্থীর উক্ত পরীক্ষার খাতা বাতিল করেন এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন। অভিযুক্ত মোঃ আরমান মোল্লা পরীক্ষার্থী না হওয়া সত্বেও নিজেকে পরীক্ষার্থী হিসাবে হাজির করিয়া প্রদীপ সরকারের পরিবর্তে পরীক্ষায় অংশগ্রহন করা ও অন্যান্য আসামীরা পরীক্ষার্থীকে সহায়তা করার অপরাধে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পাবলিক পরীক্ষা (অপরাধ) আইন ১৯৮০ এর ৩/৯(৩)/১৩ ধারায় অভিযোগ উঠায় এবং অভিযুক্তরা নিজেদের দোষ স্বীকার করায় ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

সর্বশেষ - খবর

আপনার জন্য নির্বাচিত

‍‍নওরোজ ও পহেলা বৈশাখের মধ্যে বেশ সাদৃশ্য রয়েছে : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

প্রখ্যাত লেখক-গবেষক রশীদ হায়দার আর নেই

বাংলাদেশে প্রতিনিধি অফিস খুলবে ডয়চে ব্যাংক

বাংলাদেশের সোমা নিউইয়র্কে কাউন্সিলর পদে লড়ছেন

বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংকের “ক্যাশ ওয়াক্ফ“ স্কিম এর উদ্বোধন

পানির ভবিষ্যৎ চাহিদা পূরণে কাজ করছে সরকার : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

ওয়ালটন বাংলাদেশকে নেক্সট ফেইজে নিয়ে যাচ্ছে : বিএসইসি চেয়ারম্যান

শিক্ষার্থীদের আত্মশক্তিতে ভরপুর হয়ে ওঠার আহবান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যের

কাওরান বাজারে বৃহৎ পরিসরে শাখা উদ্বোধন করেছে ব্র্যাক ব্যাংক

৫৩ জেলায় তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকার আভাস

ব্রেকিং নিউজ :