300X70
সোমবার , ১৩ মে ২০২৪ | ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দূর্নীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আনন্দ ঘর
  4. আনন্দ ভ্রমন
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত খবর
  7. উন্নয়নে বাংলাদেশ
  8. এছাড়াও
  9. কবি-সাহিত্য
  10. কৃষিজীব বৈচিত্র
  11. ক্যাম্পাস
  12. খবর
  13. খুলনা
  14. খেলা
  15. চট্টগ্রাম

প্রকৌশল কাজ অপ্রকৌশলীরা করতে পারে না : জিএম কাদের

প্রতিবেদক
বাঙলা প্রতিদিন২৪.কম
মে ১৩, ২০২৪ ৯:১২ অপরাহ্ণ

বাঙলা প্রতিদিন প্রতিবেদক : ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের ৬১তম কনভেনশনের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিরোধী দলের নেতা প্রকৌশলী গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেন, প্রকৌশল পেশার মানোন্নয়নে বিরোধী দল কাজ করবে৷ বিভিন্ন জায়গায় আমরা তুলে ধরবো। প্রশাসনের লোকেরা প্রকৌশলীদের কাজ নিয়ে যায়৷ এই সমস্যা পাকিস্তানের কর্মকর্তাদের সাথেও ছিল। পাকিস্তানি শাসন পদ্ধতি ছিল কেন্দ্রভিত্তিক। তখন সিএসপি কর্মকর্তারা সব কাজ করতে চাইতো। এক সময় আইইবি শক্তিশালী ছিল বলেই ডিসিরা প্রকৌশলীদের পেছনে ঘুরতো। সেই জন্যই প্রকৌশলীরা ঐক্যবদ্ধ হতে হবে৷ আইইবি আরও বেশি শক্তিশালী হতে হবে। সব কিছু বাদ দিয়ে ‘প্রকৌশলীরা’ প্রকৌশলী পেশাদারিত্বের প্রমান দিতে হবে৷ প্রকৌশল সংস্থায় প্রকৌশলীদের যোগ্য স্থান দিতে হবে। প্রকৌশল কাজ অপ্রকৌশলীরা করতে পারে না। পানি লাইন তো অপ্রকৌশলীরা ঠিক করতে পারবে না। কর্মকর্তাদের শক্তি আছে, থাকবে। প্রকৌশলীরাই প্রথম সেটা জোরে বলতে হবে৷ প্রকৌশলীরা সব কাজ করবে কিন্ত সুবিধা নিবে প্রশাসনের মানুষ। এটা অন্যায়। প্রধানমন্ত্রী কার্যলয়ে প্রকৌশলীদের সুযোগ করে দিতে হবে।

সোমবার (১৩ মে) রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের ৬১ তম কনভেনশনের সমাপনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় সংসদের বিরোধী দলের নেতা প্রকৌশলী গোলাম মোহাম্মদ কাদের এই সব কথা বলেন।

জাতীয় সংসদের বিরোধী দলের নেতা জিএম কাদের বলেন, আমি একজন প্রকৌশলী। প্রকৌশল আমার জীনে রয়েছে। আইইবির আজীবন সদস্য হিসেবে এখানে আসি। আইইবি দেশের ঐতিহ্য কে ধরে রেখেছেন। প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করেন এবং সমাপনী করেন বিরোধী দলের নেতা। এটা সংসদীয় গনতন্ত্র। আইইবি সংসদীয় গনতন্ত্র চর্চা করে। গনতন্ত্রের জন্য সংসদীয় গনতন্ত্র জরুরি। গনতন্ত্র মানেই সুশাসন। সুশাসন মানেই আইনের শাসন। সুশাসনে সবাইকে জবাবদিহি করতে হয়।

তিনি আরও বলেন, সকল কিছুর কেন্দ্রবিন্দু হবে সংসদ। মন্ত্রণালয়ে যারা থাকেন তারাই সরকারি বাকি সবাই বিরোধী দল। সেটা থাকলে যেকোন বিষয়ে বিরোধী দল শক্তিশালী ভূমিকা রাখতে পারে। সংসদীয় গনতন্ত্র সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে পারলে দেশের উন্নয়ন হয় দ্রুত। জনগণ এবং নেতাদের মধ্যে বিশ্বাস থাকতে হয়। গনতন্ত্র না থাকলে সুশাসন হয় না। সুশাসন না থাকলে জনগণের শান্তি থাকে না।

সমাপনী অনুষ্ঠানে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর বক্তব্য রাখেন। ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর বলেন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ভাবে দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধিকে এগিয়ে নিতেই এই কনভেনশন। আলোচনা, পরামর্শ ও লার্নিং শেয়ার করার মাধ্যমে দেশ স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার জন্যই আইইবি এই কনভেনশনের আয়োজন করে। টেকনোলজি বিশেষ করে ন্যানো টেকনোলজি, এ আই, রোবটিক্সসহ আধুনিক প্রযুক্তিতে প্রকৌশলীদের ভূমিকা ও সরকারের সাথে সমান্তরালে এগিয়ে যাওয়াই আইইবির লক্ষ্য৷ তথ্যের নিরাপত্তা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহির বাংলাদেশ তৈরি করতেই প্রকৌশলীরা কাজ করে যাচ্ছেন। প্রকল্পের স্বচ্ছতা জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতেও এ আই ব্যবহার বাড়াতে হবে৷ সরকার ও বিরোধী দলের যৌথ প্রচেষ্টায় এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

সমাপনী অনুষ্ঠানে আইইবির সম্মানি সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার এস এম মঞ্জুরুল হক মঞ্জু বলেন, সরকারের সার্বিক বিষয় তুলে ধরে বিরোধী দলের নেতা সরকারকে সহযোগিতা করে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে ভূমিকা রাখতে হবে। জাতীয় সংসদে প্রকৌশলীদের নানান দাবীগুলো সংসদে তুলে ধরবেন।প্রকৌশল সংস্থাসমূহে শীর্ষপদগুলোতে অপ্রকৌশলী ব্যক্তিদের স্থলে প্রকৌশলীদের পদায়ন করা৷ আমাদের কিছু দাবী সংসদে তুলে ধরে দেশের উন্নয়নে এগিয়ে আসবেন, ‘ওয়ারেন্ট অব প্রিসিডেন্স’ এ প্রধান প্রকৌশলী থেকে নির্বাহী প্রকৌশলী পর্যন্ত মর্যাদা অনুযায়ী অন্তর্ভুক্ত করা। কারিগরি জ্ঞানহীন বা প্রকৌশল কাজে চর্চাবিহীন ব্যক্তিদের পিডি হিসেবে নিয়োগ না দিয়ে কারিগরি জ্ঞান সম্পন্ন ব্যক্তিবর্গকে পিডি হিসেবে নিয়োগ করা। ‘এলজিইডি’, ‘টেক্সটাইল’ ‘কৃষি কৌশল’ এবং ‘আইসিটি’ ক্যাডার বাস্তবায়ন করা জরুরী এবং ২০০৬ সাল থেকে বিসিএস টেলিকম ক্যাডারের বন্ধকৃত নিয়োগ প্রক্রিয়া পুনরায় চালু করা।’

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন ঢাকা সেন্টারের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ হোসাইন। এই সময় উপস্থিত ছিলেন আইইবির ভাইস প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মো. শাহাদাৎ হোসেন শিবলু, ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মঞ্জুর মোর্শেদ, ইঞ্জিনিয়ার মো. নুরুজ্জামান, ইঞ্জিনিয়ার কাজী খায়রুল বাশার, সহকারী সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শেখ তাজুল ইসলাম তুহিন, ইঞ্জিনিয়ার অমিত কুমার চক্রবর্তী, ইঞ্জিনিয়ার আবুল কালাম হাজারী এবং ইঞ্জিনিয়ার রনক আহসানসহ আইইবির বিভিন্ন বিভাগ,কেন্দ্র এবং উপকেন্দ্রের নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য যে, গত ১১ মে (শনিবার) ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি ফর স্মার্ট বাংলাদেশ শীর্ষক ৬১তম কনভেনশন উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা। ‘দ্য ইঞ্জিনিয়ার্স ফর ট্রান্সফর্মিং টেকনোলজি ড্রাইভেন স্মার্ট বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্য বিষয়ে জাতীয় সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়৷

সর্বশেষ - খবর

ব্রেকিং নিউজ :