300X70
শুক্রবার , ২৪ মে ২০২৪ | ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দূর্নীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আনন্দ ঘর
  4. আনন্দ ভ্রমন
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত খবর
  7. উন্নয়নে বাংলাদেশ
  8. এছাড়াও
  9. কবি-সাহিত্য
  10. কৃষিজীব বৈচিত্র
  11. ক্যাম্পাস
  12. খবর
  13. খুলনা
  14. খেলা
  15. চট্টগ্রাম

প্রথমবারের মতো ফান্সে ভিভাটেক-২০২৪-এ উদীয়মান প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে বাংলাদেশের স্টার্টআপরা : প্রতিমন্ত্রী পলক

প্রতিবেদক
বাঙলা প্রতিদিন২৪.কম
মে ২৪, ২০২৪ ১:৪০ অপরাহ্ণ

আমারা আমাদের স্টার্ট-আপগুলিকে বিভিন্ন ফ্রন্টিয়ার টেকনোলোজির সাথে যুক্ত করার লক্ষ্যে কাজ করছি বাঙলা প্রতিদিন ডেস্ক : ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, উদ্ভাবন ও স্টার্টআপদের জন্য নিবেদিত ভিভাটেক-২০২৪-এ প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশের ১২টি স্টার্ট-আপ বিভিন্ন উদীয়মান প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে। তিনি বলেন, আমরা এআই, কোয়ান্টাম কম্পিউটিং, মাইক্রোচিপ ডিজাইন এবং সাইবার নিরাপত্তা সহ বিভিন্ন ফ্রন্টিয়ার প্রযুক্তির সাথে আমাদের স্টার্ট-আপগুলিকে যুক্ত করার লক্ষ্যে কাজ করছি।

গতকাল ফ্রান্সের প্যারিসে ইউরোপের সবচেয়ে বড় স্টার্টআপ এবং প্রযুক্তি ইভেন্টে ভিভাটেক নিউজের রিপোর্টার মি. লুক ব্রাউন এর সাথে সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ১৫ বছর আগে বাংলাদেশে কোনো ধরনের স্টার্ট-আপ ইকোসিস্টেম ছিল না। সেখান থেকে, আমরা আমাদের তরুণ উদ্ভাবক এবং উদ্যোক্তাদের উদ্ভাবনী সমাধান নিয়ে আসতে উৎসাহিত করেছি। এছাড়া স্টার্ট-আপ ক্যাম্পেইন, এক্সিলারেটর প্রোগ্রাম চালুসহ স্টার্ট-আপগুলিকে সহজতর করার জন্য স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড প্রতিষ্ঠা করেছি।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে এবং প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের সঠিক দিক-নির্দেশনায় খুব অল্প সময়ে বাংলাদেশে স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম গড়ে উঠেছে। বাংলাদেশে প্রায় ২৫০০টি স্টার্ট-আপ রয়েছে, যা আইসিটি সেক্টরে ১ দশমিক ৫ মিলিয়ন চাকরির সুযোগ তৈরি করেছে। বাংলাদেশের স্টার্ট-আপগুলি তাদের উদ্ভাবনী ধারণার মাধ্যমে স্থানীয় সমস্যার সমাধান করছে।

লুক ব্রাউনের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, গত ১৫ বছরে ১৩০ মিলিয়ন ব্যবহারকারীকে ইন্টারনেট অ্যাক্সেস প্রদান করতে আমরা সক্ষম হয়েছি। আইসিটি খাতে রপ্তানি আয় ২৬ মিলিয়ন ডলার থেকে ২ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ৭ লাখ সক্রিয় আইটি ফ্রিল্যান্সার রয়েছে, যারা বিভিন্ন অনলাইন প্ল্যাটফর্মে কাজ করছে। দেশের প্রায় ২,৫০০টি সরকারি পরিষেবা ডিজিটাইজ এবং ৫২,০০০ ওয়েবসাইট তৈরি করা করা হয়েছে।

এছাড়াও তিনি জানান, বাংলাদেশের স্কুল-কলেজে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন কম্পিউটার ল্যাব এবং স্কুল অব ফিউচার স্থাপন করা হয়েছে। যেখানে দেশের তরুণ-তরুণীদের প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করা হচ্ছে। এই সাফল্যের ওপর ভিত্তি করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘ভিশন ২০৪১: স্মার্ট বাংলাদেশ’- বাস্তববায়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি আমরা।

মোঃ বিপ্লব নাজির, জনসংযোগ কর্মকর্তা, আইসিটি বিভাগ, ০১৯৯৮-৪৫২৫৯৫।

সর্বশেষ - খবর

আপনার জন্য নির্বাচিত

সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের লভ্যাংশ ঘোষণা

দ্বিতীয় প্রান্তিকে এনআরবিসি ব্যাংকের ইপিএস দ্বিগুণ ইপিএস ১.১১ টাকা এবং এনএভি ১৫.৩০ টাকা

বাংলাদেশের আর্থিক খাতের ভবিষ্যৎ উন্নয়নে মাইক্রোসফটের ক্লাউড সেবা নেবে ইউসিবি স্টক ব্রোকারেজ

নোয়াখালী জেলা কমিটি বিলুপ্ত না হওয়া পর্যন্ত মেয়র কাদের মির্জার অনশন কর্মসূচি ঘোষণা

মুম্বাইতে বিয়ে করতে যাচ্ছেন কাজল

ইউএনওর চড়-থাপ্পরে কান ফাটল সাবেক ভাইস চেয়ারম্যানের!

দূষিত শহরের তালিকায় ফের শীর্ষে ঢাকা

আগামী শনিবার বাহিনী দিবস

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের শিল্প-কারখানা স্থাপনে এগিয়ে আসার আহ্বান শিল্পমন্ত্রীর

বসুন্ধরার এমডিকে হত্যাচেষ্টা, রাজধানীসহ সারাদেশে প্রতিবাদ অব্যাহত

ব্রেকিং নিউজ :