300X70
মঙ্গলবার , ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দূর্নীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আনন্দ ঘর
  4. আনন্দ ভ্রমন
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত খবর
  7. উন্নয়নে বাংলাদেশ
  8. এছাড়াও
  9. কবি-সাহিত্য
  10. কৃষিজীব বৈচিত্র
  11. ক্যাম্পাস
  12. খবর
  13. খুলনা
  14. খেলা
  15. চট্টগ্রাম

প্রবীণ সেবা প্রদানে সভ্যতা ও সুলতান টি চুক্তি

প্রতিবেদক
বাঙলা প্রতিদিন২৪.কম
এপ্রিল ১৬, ২০২৪ ৮:২৩ অপরাহ্ণ

বাঙলা প্রতিদিন ডেস্ক : ঢাকার মতিঝিলে সারা দেশব্যাপি সুবিধাবঞ্চিত প্রবীণ ও পিতা-মাতার ভরণ-পোষণ নিশ্চিৎ করার লক্ষ্যে সামাজিক সংগঠন “সভ্যতা” ও “সুলতান টি” এর সাথে সোমবার (১৫ এপ্রিল) এক চুক্তি সম্পন্ন হয়। সভ্যতার পক্ষে সভ্যতার সিইও শাকিল হোসেন এবং সুলতান টি এর পক্ষে সুলতান টি ও হেরিটেজ গ্রুপ এর প্রধান নির্বাহী ও সিইও মোঃ ফাইজুল ইসলাম হিরু এই চুক্তি সম্পন্ন করেন।

সভ্যতার মাধ্যমে সুলতান টি বিক্রয়ের মাধ্যমে লভ্যাংশ হতে একটা বিশেষ অংশ সারা দেশের সুবিধাবঞ্চিত ও অবহেলিত প্রবীণদের সেবায় ব্যায় করা হবে। ২ যুগ ধরে গুনে-মানে ও স্বাদ অক্ষুন্ন রেখে সুলতান টি, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ হতে গুনগতমানের সেরা চা এর সম্মাননা পদক প্রাপ্ত এবং দেশ ও বিদেশেও সুনাম অর্জন করেছে। সভ্যতা প্রায় এক যুগ ধরে সারা দেশের সুবিধাবঞ্চিত ও অবহেলিত প্রবীণদের সেবায় সারা দেশ ও দেশের বাইরে বিভিন্ন সময়ে সেমিনার ও রোডশো এর মাধ্যমে জনসচেতনামূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে।

বর্তমানে ঢাকার কেরানীগঞ্জে একটি প্রবীণ সেবা ঘর নামক প্রতিষ্ঠান নির্মানাধীন রয়েছে। সভ্যতা কোন ব্যাক্তিগত বা প্রাতিষ্ঠান হতে কোন সাহায্য সহযোগীতা না নিয়ে নিজস্ব চেষ্ঠায় ও উদ্দোগে এই কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে। ভবিষ্যতে এর ব্যাপক প্রচার- প্রসার ও পরিচালনার জন্য সভ্যতা তার নিজ ব্যাবসার মাধ্যমে লাভাংশ দিয়ে সেবামূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করার জন্য বদ্ধ প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।সমাজ সেবায় বিশেষ অবদানের জন্য বিভিন্ন সময় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রী, এমপি ও সমাজের বিশিষ্ট ব্যাক্তি ও সংগঠনের পক্ষ হতে সম্মননা প্রাপ্ত হন।

ব্যক্তি স্বার্থে আমরা আমাদের কাছের মানুষদেরও অনেক সময় অবহেলা করে থাকি। অনেক অবহেলার মাঝে সবচেয়ে বড় অবহেলা নিজ নিজ পিতা-মাতাকে অবহেলা করা। আজ সভ্যতার মাধ্যমে পৃথিবীর সকল প্রন্তে থাকা প্রবীণদের সম্মান ও শ্রদ্ধা নিবেদন করছি।

আজ থেকে একশ বছর আগে সরকারী হিসাব মতে এদেশের মানুষের গড় আয়ু ছিল ২০ বছর। চিকিৎসা বিজ্ঞানের উৎকর্ষের ফলে ২০১৯ সালে এদেশের মানুষের গড় আয়ু দাঁড়িয়েছে প্রায় ৭২ বছর। এ বিষয়টি এক দিকে যেমন খুশির কথা ঠিক অন্যদিকে কঠিন বার্তা ভবিষ্যৎ বিশ্বের জন্য।

ভবিষ্যতে এই বিশাল প্রবীণদের ভরন-পোষনের দায়িত্ব কে নিবে? কারণ সন্তানরা নিজ নিজ সংসার, চাহিদা ও আর্থিক সমস্যা নিয়ে এতটা ব্যস্ত যে, পিতা-মাতার ভরণ-পোষন থেকে নিজেদের গুটিয়ে রাখতে চেষ্ঠা করছে এবং অনেকে সফলও হচ্ছে। এই প্রবণতার বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলে গণসচেনতামূলক আন্দোলন-এর সূচনা করা প্রয়োজন।

এতা বড় একটি কাজ সভ্যতার একার পক্ষে চালিয়ে যাওয়া কোন ভাবেই সম্ভব নয়। আমরা উদ্যোগ নিয়েছি। এ উদ্যোগকে এগিয়ে নেয়ার দায়িত্ব আমাদের সবার।
আজ আমরা যারা নবীন আছি, আসুন তারা সবাই প্রবীণদের যথাযথ সম্মানের সাথে সেবা করি, আর নিজে প্রবীণ হওয়ার আগেই নিজের জন্য যথাসম্ভব প্রস্ততি নেই, যেন বৃদ্ধ বয়সে স্বাভাবিক জীবন-যাপনের জন্য অন্যের মুখাপেক্ষী হতে না হয়।

যে কোন সরকারেরই উচিৎ প্রবীণদের বিশেষ সেবা প্রদান করা, কারন যে কোন নির্বাচনে প্রবীণ ভোটারের সংখ্যা তুলনা মূলক ভাবে কম নয়। প্রবীণরা বিভিন্ন পরিস্থিতির কারনে নিজ নিজ ঘরে নিজের পছন্দ অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে না পারলেও নির্বাচনের সময় কষ্ট হলেও অসুস্থ শরীর নিয়ে ভোট দিতে -ভোট কেন্দ্রে যান নিজের পছন্দ -অপছন্দকে ব্যালট পেপারে সিল মারার মাধ্যমে নিজের পছন্দের সরকারকে দেশ পরিচালনার দ্বায়িত্ব দিতে।

শুধু মসজিদ-মন্দির বানিয়ে কি লাভ, যদি ভক্ত আর মুসল্লিদের কোন খবর রাখা না হয়, তাদের সামাজিক, মানসিক ও আর্থিক স্বচ্ছলতা না থাকে। এটাও হতে পারে মসজিদ-মন্দির এর পাশে প্রবীণ সেবা কেন্দ্র স্থাপন করা, তাহলে মসজিদ-মন্দির ভক্ত আর মুসল্লির অভাব হবে না। এতে করে ধর্ম সমাজে শান্তির বানী বয়ে আসবে।

নিজ নিজ সন্তানকে সঠিক ধর্মীয় ও মানবতার শিক্ষা দিন। সৎ উপার্জনে সন্তানদের লালন পালন করুন। আমার সন্তান, আমার ছেলে-আমার মেয়ে বলে সব সম্পত্তি, ও জীবনের শেষ সম্বলটুকু লিখে দেওয়া ও অন্ধ বিশ্বাস থেকে বিরত থাকুন। সব মায়া আর অনুভুতিকে সাথে রেখেও বাস্তবমুখী হোন। বর্তমানে দাড়িয়ে ভবিষ্যৎকে যত সুন্দর আর নিরাপদ মনে হয়, ভবিষ্যৎ তেমন না ও হতে পারে। তাই আসুন আজ হতেই শুরু করি প্র¯ত্ততি ভবিষ্যতে নিজের প্রবীণ বা বৃদ্ধ বয়সের জন্য।

আসুন, যৌবনে এমন কিছু করি, যেন বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে সম্মানও সমানভাবে বৃদ্ধি পায়।
যখনই বয়সের ভারে নূব্জ্য কোন প্রবীণের হাত ধরবেন, সেই হাতের রেখাগুলো ভালো করে স্পর্শ করে অনুভব করার চেষ্টা করুন। সেখানে উনার ভবিষ্যৎ না বরং নিজেরই ভবিষ্যৎ খুজে দেখুন ।

সমাজের বর্তমান অবক্ষয় ঠেকাতে নিজ নিজ সন্তানদের সঠিক ধর্মীয় শিক্ষা দিন ও সৎ উপার্জনে সন্তান লালন পালন করুন এবং বৃদ্ধ বয়সে সুখ-সম্মানের সাথে বসবাস করুন।
বছরের একটি দিনকে কেন্দ্র করে বাবা দিবস, মা দিবস, প্রবীণ দিবস মানিয়ে একদিনের জন্য মমতা ও সেলফি তুলে ফেসবুকে আপলোডের মাঝে যেন আমরা সীমাবদ্ধ না থাকি।

সভ্যতা উচু ইমারত হতে চায় না, যা মাটির উপরিভাগে থাকে। হতে চায় সেই গাথুনী, যা থাকে মাটির নিচে। যার সৌন্দর্য কেউ বর্ধণ করে না, বছর বছর রং করে না। সভ্যতা শুধু বুকের মাঝে এক সুন্দর ভবিষ্যৎ সাজাতে কাজ করে যাবে।

সর্বশেষ - খবর

আপনার জন্য নির্বাচিত

কার্টন প্রস্তুতকারক সমিতির ৭ দাবি

বিশ্ব নিউমোনিয়া দিবস আজ

উই সামিটে বিকাশের সহযোগিতায় নারী উদ্যোক্তাদের জন্য ‘পারসোনাল রিটেইল অ্যাকাউন্ট’

কুড়িগ্রাম কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রকে এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা দিবে ব্র্যাক ব্যাংক

ডিজিটাল প্লাটফর্মে পদ্মা ব্যাংকের টাউন হল মিটিং অনুষ্ঠিত

দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা ভোট সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে : ইসি

দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা ভোট সুন্দর ও শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে : ইসি

দেশে কর সংস্কৃতির এক নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশের হজ ব্যবস্থাপনা হবে বিশ্বের মধ্যে একটি মডেল : ধর্মমন্ত্রী

মশা নিয়ন্ত্রণে ডিএনসিসিতে বিশেষ অভিযান উদ্বোধন

নিজের জন্য নয়, জনগণের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেন প্রধানমন্ত্রী: কাদের

ব্রেকিং নিউজ :