300X70
সোমবার , ১৫ জানুয়ারি ২০২৪ | ৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দূর্নীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আনন্দ ঘর
  4. আনন্দ ভ্রমন
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত খবর
  7. উন্নয়নে বাংলাদেশ
  8. এছাড়াও
  9. কবি-সাহিত্য
  10. কৃষিজীব বৈচিত্র
  11. ক্যাম্পাস
  12. খবর
  13. খুলনা
  14. খেলা
  15. চট্টগ্রাম

শিল্পকলা পদক পাচ্ছেন ২০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান

প্রতিবেদক
বাঙলা প্রতিদিন২৪.কম
জানুয়ারি ১৫, ২০২৪ ৮:৪০ অপরাহ্ণ

বাঙলা প্রতিদিন ডেস্ক : সংস্কৃতি একটি জাতির আত্মপরিচয়ের প্রধান অবলম্বন। যে জাতির সংস্কৃতি যত সমৃদ্ধ সে জাতি সভ্যতা ও সৃষ্টিশীলতার দিক থেকে তত অগ্রগামী। বাঙালি জাতির রয়েছে সংস্কৃতি চর্চার হাজার বছরের ঐতিহ্য ও উত্তরাধিকার। সেই উত্তরাধিকারের ধারাবাহিকতা রক্ষা ও সুকুমারবৃত্তির অনুশীলন-পরিশীলনের মধ্য দিয়ে সৃজনশীল মানবিক বাংলাদেশ বিনির্মাণের স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি দেশের সংস্কৃতি চর্চার অন্যতম জাতীয় প্রতিষ্ঠান। জাতীয় সংস্কৃতির গৌরবময় বিকাশকে অব্যাহত রাখতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৪ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন।

জাতীয় সংস্কৃতি ও কৃষ্টির উন্নয়ন, সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও প্রসারের মাধ্যমে সকল মানুষের জন্য শিল্প সংস্কৃতির প্রবাহ তৈরি এবং বিশ্বময় বাঙালি সংস্কৃতির সম্প্রসারণের লক্ষেই শিল্পকলা একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। বর্তমানে ৬৪ জেলায় ও ৪৯৩ উপজেলায় শিল্পকলা একাডেমির শাখা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এবং তৃণমূল পর্যায়ে ছড়িয়ে পড়েছে সংস্কৃতি চর্চা।

দেশের শিল্প-সংস্কৃতির সকল অনুষঙ্গের সংগ্রহ, সংরক্ষণ, বিকাশ সাধন, সবার অন্তরে শিল্পের আলো প্রজ্বালন এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে আমাদের গৌরবোজ্জ্বল সংস্কৃতিকে সুপ্রতিষ্ঠিত করার ব্রত নিয়ে নিরন্তর কাজ করে চলেছে একাডেমি।

‘শিল্পকলা পদক’
বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃক ‘শিল্পকলা পদক’ প্রবর্তন বাংলাদেশের শিল্প-সংস্কৃতির ইতিহাসে একটি অনন্য পদক্ষেপ। এই আয়োজনের মাধ্যমে একদিকে যেমন গুণী শিল্পীদের গুরুত্বপূর্ণ কৃতিত্বের স্বীকৃতি প্রদান করা হয়, অন্যদিকে আমাদের জীবনঘনিষ্ঠ সংস্কৃতি চর্চা, উন্নয়ন এবং বিকাশের গতি ত্বরান্বিত হয়। বাঙালি সংস্কৃতির বিকাশ-পর্বে শিল্পকলা একাডেমির ভূমিকা প্রণিধানযোগ্য।

গবেষণা ও প্রকাশনা বিভাগের ব্যবস্থাপনায় ২০১৩ সাল থেকে ‘শিল্পকলা পদক’ প্রদান প্রথা চালুর মাধ্যমে একাডেমির নবপর্যায়ের মঙ্গল-যাত্রা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশের শিল্প ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে জাতীয় পর্যায়ে বিশেষ অবদানের জন্য গুণীজন এবং তাঁদের কর্মকে চিহ্নিত করে সংস্কৃতির পৃষ্ঠপোষকতা ও বিকাশ সাধনের লক্ষ্যে নীতিমালা অনুযায়ী ‘শিল্পকলা পদক’ প্রদান করা হয়ে থাকে।

মাঠ পর্যায় থেকে প্রাপ্ত গুণীজনের তালিকা ও আবেদন চূড়ান্তভাবে মনোনয়নের লক্ষ্যে ‘শিল্পকলা পদক’ নীতিমালা অনুযায়ী আবেদনসমূহ পর্যালোচনা জন্য গঠিত মূল্যায়ন কমিটির মাধ্যমে সর্বসম্মতিক্রমে (১২টি ক্ষেত্র হতে ১০টি ক্ষেত্র) ২০ জন গুণীশিল্পী ও প্রতিষ্ঠানকে ২০২১ সালে এবং ২০২২ সালের জন্য ‘শিল্পকলা পদক’ প্রদানের জন্য নির্বাচিত করা হয়েছে।

নীতিমালা অনুযায়ী ১৬ সদস্যের কমিটি প্রতি বছর পদকের জন্য গুণীজন নির্বাচন করে থাকেন। ‘শিল্পকলা পদক’-এর জন্য মনোনীত ব্যক্তি/ প্রতিষ্ঠানকে ১টি করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি-এর নাম এবং মনোগ্রাম সম্বলিত স্বর্ণ পদক, সনদপত্র এবং ১ লক্ষ টাকার চেক প্রদান করা হয়ে থাকে।

পদক প্রসঙ্গে একাডেমির মহাপরিচালক জনাব লিয়াকত আলী লাকী বলেছেন, ‘‘বিনম্র শ্রদ্ধা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে, যিনি শিল্পের মহান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করার স্বপ্নযাত্রায় শিল্প-সংস্কৃতির চর্চা, প্রসার ও বিকাশকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন; অনুপ্রাণিত করে চলেছেন দেশের শিল্পী, সাহিত্যিক এবং সংস্কৃতিসেবীদের। আমি বিশ্বাস করি, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি বাংলাদেশকে বিশ্বের একটি অন্যতম আলোকিত ও সৃজনশীল দেশে পরিণত করতে অনন্য ভূমিকা পালন করবে। আমি পদকপ্রাপ্ত গুণী শিল্পীদের শ্রদ্ধা জানাই। সকলের প্রতি রইল আন্তরিক শুভেচ্ছা।”
২০২১ ও ২০২২ অর্থ বছরে যে সকল গুণী শিল্পীরা শিল্পকলা পদক পেয়েছেন:

২০২১ সালে শিল্পকলা পদক পেয়েছেন:
১. যন্ত্রসঙ্গীত- মো: নূরুজ্জামান
২. নৃত্যকলা- শারমীন হোসেন
৩. কণ্ঠসংগীত- সাদি মহম্মদ
৪. চারুকলা- শিল্পী বীরেন সোম
৫. নাট্যকলা- অধ্যাপক আবদুস সেলিম
৬. লোকসংস্কৃতি – মো: নহীর উদ্দিন
৭. চলচ্চিত্র- ড. মতিন রহমান
৮. আবৃত্তি – কাজী মদিনা
৯. যাত্রাশিল্পী – এম. এ. মজিদ
১০. সৃজনশীল সাংস্কৃতিক সংগঠন/সংগঠক- জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ
২০২২ সালে শিল্পকলা পদক পেয়েছেন:
১. যন্ত্রসঙ্গীত- ফোয়াদ নাসের
২. নৃত্যকলা- সাজু আহম্মেদ
৩. কণ্ঠসংগীত- এলেন মল্লিক
৪. চারুকলা- অধ্যাপক অলক রায়
৫. নাট্যকলা- খায়রুল আলম সবুজ
৬. লোকসংস্কৃতি-সুনীল কর্মকার
৭. ফটোগ্রাফি- রফিকুল ইসলাম
৮. আবৃত্তি- মীর বরকতে রহমান
৯. যাত্রাশিল্পী- অরুণা বিশ্বাস
১০. সৃজনশীল সাংস্কৃতিক গবেষক- ড. সফিউদ্দিন আহমদ।
শিল্পকলা পদকপ্রাপ্ত সকল গুণীজনদের বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা এবং অভিনন্দন। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতির সদয় অনুমতি ও তারিখ নির্ধারণ সাপেক্ষে ‘শিল্পকলা পদক’ প্রদান অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে।

সর্বশেষ - খবর

আপনার জন্য নির্বাচিত

যশোরে ২০টি স্বর্ণের বারসহ পাচারকারী আটক

বকশীগঞ্জ ও সরিষাবাড়িতে কালবৈশাখী ঝড়ে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

রংপুর ক্যাডেট কলেজে প্রাক্তন ক্যাডেটদের ৭ম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

ঈদযাত্রা ‘নির্বিঘ্ন’ হয়েছে, অনেকের কষ্টের জন্য ‘দুঃখ’ প্রকাশ কাদেরের

চীনের চিয়াংশি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টুডেন্ট ইউনিয়নে ২ বাংলাদেশি নির্বাচিত

‘সকল শিক্ষার্থীর ই-বুক, ই-জার্নাল একসেস নিশ্চিত করা হবে’

সাউথইস্ট ব্যাংক থেকে অনুদানের চেক পেলেন ঘাসফুলের ৫০ কৃষক

সুযোগ পেলেই আবার নাশকতা করবে, জনগণকে ছোবল মারবে বিএনপি : তথ্যমন্ত্রী

গাজীপুরের টঙ্গীতে ডজন মামলার আসামি গ্রেফতার

“জয় বাংলা” স্লোগান স্বাধীনতাবিরোধীদের সহ্য হয় না : গণপূর্তমন্ত্রী

ব্রেকিং নিউজ :