300X70
সোমবার , ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দূর্নীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আনন্দ ঘর
  4. আনন্দ ভ্রমন
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত খবর
  7. উন্নয়নে বাংলাদেশ
  8. এছাড়াও
  9. কবি-সাহিত্য
  10. কৃষিজীব বৈচিত্র
  11. ক্যাম্পাস
  12. খবর
  13. খুলনা
  14. খেলা
  15. চট্টগ্রাম

সফলভাবে বাণিজ্যিক উৎপাদনে বাঁশখালীর এসএস পাওয়ার প্ল্যান্ট

প্রতিবেদক
বাঙলা প্রতিদিন২৪.কম
সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২৩ ৯:১০ অপরাহ্ণ

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক, বাঙলা প্রতিদিন : চট্টগ্রামের বাঁশখালীর গন্ডামারায় অবস্থিত ১৩২০ মেগাওয়াট সক্ষমতার এসএস পাওয়ার প্ল্যান্ট সফলভাবে বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করেছে। সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাত ১২টা ০১ মিনিট থেকে এই বিদ্যুৎকেন্দ্রটির একটি ইউনিট (৬৬০ মেগাওয়াট) পূর্ণ সক্ষমতায় জাতীয় গ্রিডে বিদ্যুৎ সরবরাহের কার্যক্রমে নিয়োজিত হয়। এর আগে, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) এর কর্মকর্তারা পাওয়ার প্ল্যান্টটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেন।

চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হওয়া এই বিদ্যুৎকেন্দ্রে ৬৬০ মেগাওয়াট এর মোট দুইটি ইউনিট রয়েছে। যেটির প্রথম ইউনিট থেকে বিগত ২৪ মে পরীক্ষামূলকভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয় এবং দ্বিতীয় ইউনিট থেকে পরীক্ষামূলকভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়েছিল ২৮ জুন তারিখে। এবার পুরোপুরি বাণিজ্যিক উৎপাদনে গেল দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী এস আলম গ্রুপ এবং চীনা কোম্পানি সেপকো থ্রি ও এইচটিজি এর মালিকানাধীন এসএস পাওয়ার এর একটি ইউনিট ।

এ প্রসঙ্গে এসএস পাওয়ার প্ল্যান্টের প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা (সিএফও) মো. ইবাদত হোসেন ভূঁইয়া, এফ সি এ বলেন, “আজ আমাদের দেশের মানুষের জন্য খুবই খুশির একটি দিন। পিডিবি ও সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতায় আমরা ১৮ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা ০১ মিনিট থেকে সফলভাবে এসএস পাওয়ার প্ল্যান্টের বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করতে পেরেছি এবং সে বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হচ্ছে। এই পাওয়ার প্ল্যান্টটির বাণিজ্যিক উৎপাদন সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন জীবনযাত্রা ও জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।”

বাঁশখালীর এই তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নানা কারণে গুরুত্বপূর্ণ। এটি দেশি-বিদেশি অর্থায়নে দেশের প্রথম বৃহৎ বেসরকারি কয়লা ভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ প্রকল্প। ২.৬ বিলিয়ন ইউএস ডলার অর্থ্যাৎ ২৮ হাজার কোটিরও বেশি ব্যয়ে নির্মিত এই পাওয়ার প্ল্যান্টটি বেসরকারি একক বিনিয়োগ হিসেবে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। এছাড়া, বেসরকারি প্রকল্পে বিদেশি বিনিয়োগেও রেকর্ড করেছে এস আলম গ্রুপ। প্রকল্পটিতে শীর্ষস্থানীয় দেশীয় কোম্পানি এস. আলমের অংশীদারিত্বের পরিমাণ ৭০ শতাংশ এবং বাকি ৩০ শতাংশের মালিকানায় রয়েছে চীনা কোম্পানি সেপকো থ্রি ও এইচটিজি।

বিদ্যুৎকেন্দ্রটি পুরোপুরি চালুর ফলে স্থানীয় শিল্পকারখানার প্রসার, সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা উন্নতির পাশাপাশি দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রায়ও নতুন মাত্রা যুক্ত হবে। অন্যান্য পাওয়ার প্ল্যান্টের তুলনায় এসএস পাওয়ার প্ল্যান্টে সাশ্রয়ে বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে। এটি পুরোপুরি উৎপাদনে থাকলে দৈনিক প্রায় ২.৯৩ কোটি ইউনিট ও মাসে প্রায় ৮৮ কোটি ইউনিটের মতো বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে সক্ষম হবে।

প্রসঙ্গত, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) ও এসএস পাওয়ারের মধ্যে চুক্তি সইয়ের পর ২০১৬ সালে এস এস পাওয়ার প্ল্যান্টের কাজ যৌথভাবে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং চীনের রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং। এরপর কার্যক্রম শুরুর পর অন্যান্য বিদ্যুৎ প্রকল্পের তুলনায় খুব দ্রুতই সফলভাবে বাণিজ্যিক উৎপাদনে এসেছে এসএস পাওয়ার প্ল্যান্ট।

সর্বশেষ - খবর

আপনার জন্য নির্বাচিত

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের লিংক রোড শাখার শুভ উদ্বোধন

দেশের চাহিদা পূরণ করে বিশ্বমানের নৌযান বিদেশে রপ্তানি করা হচ্ছে

অপহরণের নাটক সাজিয়ে প্রতিপক্ষকে গায়েলের চেষ্টা সুষ্ঠু তদন্তের দাবী

ঈশ্বরগঞ্জে ইউএনও’র সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময়

২০২৪ সালের মধ্যে শতভাগ জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন নিশ্চিত করতে চায় সরকার : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

খালাস চেয়ে হাইকোর্টে বরখাস্ত ডিআইজি প্রিজন বজলুরের আপিল

ক্যানসার রোধে শক্তিশালী তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন জরুরি

গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংকের ৩ টি উপশাখার উদ্বোধন

আগামীকাল আইইবি’র ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

ট্রেন দুর্ঘটনা : বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে ফেরা এক পরিবারের সবাই নিহত

ব্রেকিং নিউজ :