শুক্রবার , ৩০ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৭ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দূর্নীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আনন্দ ঘর
  4. আনন্দ ভ্রমন
  5. আলোচিত খবর
  6. উন্নয়নে বাংলাদেশ
  7. এছাড়াও
  8. কবি-সাহিত্য
  9. কৃষিজীব বৈচিত্র
  10. ক্যাম্পাস
  11. খবর
  12. খুলনা
  13. খেলা
  14. চট্টগ্রাম
  15. জাতীয়

১২ কবির কাব্যগ্রন্থের পাঠ প্রতিক্রিয়া

প্রতিবেদক
বাঙলা প্রতিদিন
ডিসেম্বর ৩০, ২০২২ ২:০৫ পূর্বাহ্ণ

রহিম ইবনে বাহাজ : কবিতা আমাদের জীবনের পক্ষে সত্যিই কি প্রয়োজন? কেন প্রয়োজন? কবি জীবনানন্দ দাশ কবিতার কথা প্রবন্ধে বলেছেন; কবিতা যে এতো অল্প লোকে ভালোবাসে সেটা কি প্রকৃতিরই নিয়ম নাকি অধিকাংশের বিকৃত কি দূষিত শিক্ষার ফলন? যদি আরো বেশি লোকে কবিতা ভালোবাসতে ও বুঝতে শেখে তাহলে সেই অনুপাতে তারা ভালো করে বাঁচতে শিখবে কি না অর্থাৎ সেই অনুপাতে সমাজের মঙ্গল হবে কি না? মানুষের সামাজিক ও ব্যাক্তিগত জীবনকে সর্বাঙ্গীণ ও সুখের করে গড়বার সংগ্রামে ও সাধনায় কবিতার স্থান কোথায়? এ প্রশ্নগুলো কোনো হিতসাধন মণ্ডলীর কম সচিবদের প্রশ্ন বলে মনে হয়, কিন্তু তবুও জিজ্ঞাসাগুলো নিটোল ও আন্তরিক, এবং বিশদভাবে নয়। কবিতা ও কবিখ্যাতি এক নয়। কবিতার সৃষ্টি প্রক্রিয়া মধ্যে দ্বিতীয় ব্যক্তির উপস্থিতির দরকার হয় না। কিন্তু কবিতার অস্তিত্ব নির্ভরশীল তার পাঠকবর্গের মর্জির উপর। একটি কবিতার সমকালে বা অনাদিকালে কোনো পাঠক না জুটলে তাকে কেউ কবিতা বলবে না।

কবিতা এমন একটা শিল্প যা করার জন্য কেউ বাধ্য কিংবা পূর্ব মজুরি দিয়ে নিয়োগ করতে পারে না। আবার রচিত হওয়ার পওে কোনো পাঠক না পাওয়া গেলে ঐ কবিতার অস্তিত্ব বিফল হতে বাধ্য। এমন কি কবি নিজেও তার একই কবিতা পাঠে উৎসাহ হারিয়ে ফেলতে পারেন। কবিতা লেখার প্রথম পর্যায়ে একজন কবি ভাব দ্বারা তাড়িত হন।

বাইরের জগতের সঙ্গে তার ভেতরর জগতের যে দ্বন্দ্ব তাকে তিনি প্রকাশ করতে চান আর এ সমস্যা সম্পূর্ণ তার নিজের। কিন্তু কবি যেহেতু ভাষা সৃষ্টি করেনি ভাষা যেহেতু একটি ভাষাগোষ্ঠীর অভিন্ন অংশ দায়িত্বে বিরাজমান সেহেতু সেই ভাষাগোষ্ঠীর মধ্যে কবিতা একটি ক্রিয়াশীল ক্ষেত্র তৈরি করতে পারে। কিন্তু কবি এবং কবিতার সর্বজনীন সংজ্ঞা না থাকায় কবির দাবি সব সময় নাকচ করা যায় না।

প্লেটোর সাহিত্য দর্শন পাওয়া গেল; কবিরা হলেন লঘু মনের চঞ্চল, অপার্থিব জীব; এবং কবির কবিতা একমাত্র তখনই বেরিয়ে আসে যখন দেবতা তার মনকে দখল কওে নেন। ফলে তিনি আত্মাহারা হয়ে পড়েন এবং বিবেক-বুদ্ধি বা যুক্তি একেবারে লোপ পায়। যুক্তি কাজ করলে কেউ ভবিষ্যদ্বাণী বা কাব্য রচনা করতে পারবে না। অতএব শিল্পবিদ্যা এক নয়, স্বর্গীয় নির্দেশেই কাব্যগাঁথা অথবা পৃথিবী সম্পর্কে ঐশীবাণীর জন্ম হয়েছে। বই আলোচনায় ১২ জন কবির কবিতা গ্রন্থ পড়ে সত্যি আমি মুগ্ধ।

কবি ওবায়েদ আকাশ-এর কাব্য গ্রন্থ ‘পৃষ্ঠাজুড়ে সুলতান পুর’ কবি তাঁর শিকড়কে লালন করেছেন মোট ৮০টি কবিতা পাঠ করি। ‘আমি যখন জেগে থাকি তখন ঘুমিয়ে থাকে সুলতান পুর।’ যে কেউ পৃষ্ঠাজুড়ে সুলতান পুর বইটি পড়লে বিশুদ্ধ জমিনের গন্ধ শুঁকে নিতে পারবে ।

তৃষ্ণার পৃথিবী ছুঁয়ে : কবি আদ্যনাথ ঘোষ, কাব্যগ্রন্থটি হাতে পেয়ে উচ্ছ্বসিত হই, বইটিতে ৪৮টি কবিতা। আমার কাছে প্রায় সব কবিতাই ভালো লেগেছে। পাঠক মহলে প্রশংসিত হোক। গহিন গাঙের ঢেউ কবি নুসরাত সুলতানার কাব্যগ্রন্থটি পড়ে বুঝতে পেরেছি একজন শিক্ষিত আধুনিক কর্মজীবী নারী, একজন মা, হৃদয় গহিনে পুষে রাখেন একটি খরস্রোতা নদী। সেই নদীতে ঢেউ হয়ে তরঙ্গায়িত হয় হয় প্রেম, দ্রোহ, স্বপ্ন, হতাশা; আর জীবনের কোনো বাঁকে নিজেকে হারিয়ে ফেলার তীব্র দহন। ‘গহিন গাঙের ঢেউ’ বইটি পড়ে পাঠক কখনো প্রেমে ডুবে যাবেন, কখনো খুঁজে পাবেন মমতাময়ী মাকে। ভালোবাসার সাত সিন্ধু মিলে একটা স্মৃতি ভেসে ওঠে আরেকটা নীল রঙের বেদনা। কবি নুসরাত সুলতানা স্বদেশ নিয়েও বেশ কিছু কবিতার মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন।

কবি হেনরী স্বপন-এর কাব্যগ্রন্থ ‘অল্জান’। ৩২টি গদ্য কবিতা আকুতিভরা কবির জানে ফেনিয়ে উঠছে বিষাদের জালছাপ; হাহাকার ঠেলে সবুজ প্রকৃতি প্রণয়ের ঘনত্ব বাড়াতে থাকে হেনরী স্বপন। ‘জলের আগুন জ্বলে’ কবি জহুরল ইসলামের কাব্যগ্রন্থ; বেশ কিছু কবিতা ভালো হয়েছে, পাঠকপ্রিয়তা পাক কবি জহুরুল ইসলামের জন্য শুভকামনা রইল। কবি দ্বীপ সরকার-এর কাব্যগ্রন্থ ‘ফিনিক্স পাখির ডানা’, মোট ৬৩টি কবিতা পড়েছি, দারুণ অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে পারেন তিনি, সুন্দরভাবে পাঠক বইটি সংগ্রহ করলে প্রশান্তির সুখ পাবে। কবি গোবিন্দ লাল হালদার-এর কাব্যগ্রন্থ ‘নৈঃশব্দের অমিয় গান’ বইটি ডাকযোগে পেয়েছি, প্রায় সব কবিতাই আমার ভালো লেগেছে। কবি হাসান ইমতিয়াজ-এর কাব্য গ্রন্থ ‘ ভুলে যাও এবেলা’ কাব্যগ্রন্থটির ২৯ নং পৃষ্ঠায় একটি কবিতা খুব ভালো হয়েছে, আমাকে আঁকতে গেলেই তোমার কেবল দুঃখ বাড়ে; জলছবি আর রংতুলিতে কও কিছু আঁকছো তুমি আঁকছো তাহার ঘরের পরের নদী ও মাঠ বেলাভূমি নেই তো তখন দুঃখ তোমার দুঃখ- শুধুই আমার ধারে! কবি হাসান ইমতিয়াজ-এর কাব্য রচনা প্রায় সব কবিতাই রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতার ঝুলি পূর্ণ করেছে।

কবি ফারুক আফিনদী-এর ‘একটা গাণিতিক প্রেমপত্র’ কবি ফারুক আফনদীর কবিতার ভাষা, শব্দের ব্যবহার, নবযুগের বাস্তব জীবনের মহাযুদ্ধগুলো, প্রণয়পূর্ণ বা অপূর্ণ পাওয়া-না পাওয়ার বিরহ কাতর। কবি ফারুক আফনদী নিজেই বলছেন; একটা গাণিতিক প্রেমপত্র দেখে বা পড়ে মনে হতে পারে এতো আগাগোড়াই প্রেম, আগাগোড়া নারী। কিন্তু একটু কঠিন হবে এটা মনে আনা যে, এ যে আগাগোড়া নারীর নক্ষত্র, যেখানে রক্ত নেই গোসত নেই বেশির ভাগে এটাই। সেজন্যে গ্রন্থটির সব লেখা যুগপূর্ব সময়ের হলেও চেয়েছিলাম একুশ সালের টিকারূপী ঐ পঙক্তিটা, যা চার শব্দের এবং যার শিরোনাম প্রায় তিনগুণ বেশি শব্দবিশিষ্ট, এর মধ্যে থাক কিন্তু এর জায়গা হল বাইরে। আসলে এটাই এর আসল জায়গা, এতো বস্তত আগকথন। কবি পিয়াস মজিদ এ সময়ের পরিচিত মুখ। তাঁর কাব্যগ্রন্থ ‘বসন্ত কোকিলের কর্তব্য’ বেশ কয়েক বার পাঠ করেছি, সব কবিতাই পাঠমুগ্ধ।

কবি রুন্দ্র সাহাদাৎ-এর বই ‘কবিমন হাঁটে দরিয়া নগর’ বইটিতে মোট ৬৪টি কবিতা পাঠ করেছি সব কবিতা ভালো লাগিনি। অনেক কবিতা ভালো লেগেছে তৃপ্তি পেয়েছি, হৃদয়ে মোচড় দিয়েছে, পঙক্তিগুলো ছোট ছোট, পাঠক সহজেই এক নিঃশ্বাসে শেষ করতে পারবে এবং আত্মার অস্তিত্বে অক্ষণ্ণ থাকবে কবি রুদ্র সাহাদাৎ। কবি জোবায়ের মিলন প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘স্বৈরাচারী দুঃখ বিবিধ’, গ্রন্থটি অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০২২ হতে সংগ্রহ করেছি।

মোট ৬৪টি কবিতা পাঠ করেছি আধুনিক এবং গদ্য কবিতা পড়ে মুগ্ধ হয়েছি। মানুষ মওে গেলে কিছুই থাকে না, কিন্তু তাঁর সৃষ্টিকর্ম, সাধনা, নিবেদিত প্রাণ হয়ে বেঁচে থাকে কবি। কবি জোবায়ের মিলন তার অস্তিত্ব খুঁজে পাবে পাঠক একটু জোর দিয়েই বলেছি। ইচ্ছে কবিতায় বলছেন, ‘আমার খুব ইচ্ছা/একদিন/ঈশ্বরকে দেখবো/তাঁর চোখের দিকে তাকিয়ে/অনেকক্ষণ তাকিয়ে থাকব।

কবি জোবায়ের মিলন-এর কবিতায় প্রেম, দ্রোহ, পাওয়া না পাওয়ার মিথক্রিয়াগুলো সুন্দর। পাঠক মুগ্ধ হয়ে পাঠ করুক তার কবিতা এই শুভকামনা সতত।

সর্বশেষ - জাতীয়

আপনার জন্য নির্বাচিত

এ বছরের ১১.১১ ক্যাম্পেইনে উদ্ভাবন ও সেরা ক্রেতা অভিজ্ঞতা প্রদানে গুরুত্ব দিচ্ছে দারাজ

ব্যাংকে লেনদেন সকাল ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা

সিরিজের প্রথম ম্যাচেই জয়, এক কথায় অসাধারণ : জিএম কাদের

মানবাধিকার উন্নয়ন কেন্দ্রের উদ্যোগে খাদ্য বিতরণ

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করে এসডিজি অর্জনে বৈশ্বিক রোডম্যাপের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বিশিষ্ট গণসংগীত শিল্পী ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর শোক

পরিত্যক্ত অবস্থায় টিসিবি’র পণ্য উদ্ধার

বিশ্বে আবারও করোনায় মৃত্যু-আক্রান্ত বাড়লো

বাংলাদেশ দলের এই বিজয় গুরুত্বপূর্ণ : জিএম কাদের

দেশের দুই বিভাগে বৃষ্টি, কমতে পারে তাপমাত্রা

ব্রেকিং নিউজ :