বাদ পড়লেন অপু বিশ্বাস

অপু বিশ্বাস

আনন্দ ঘর প্রতিবেদক
জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী নির্মাতা মোস্তাফিজুর রহমান মানিকের নতুন সিনেমা ‘আশীর্বাদ’। এ ছবিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন অপু বিশ্বাস। তবে এতে থাকছেন না তিনি। সরকারি অনুদানের ছবি ‘আশীর্বাদ’ থেকে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার মাত্র দুদিনের মধ্যে বাদ পড়েছেন অপু। ছবির প্রযোজক জেনিফার ফেরদৌস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
অপু দাবি করেন, তিনি বাদ পড়েননি। নিজেই ছবিটি থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। সরকারি অনুদান পাওয়ার পর থেকেই প্রযোজক ও কাহিনিকার জেনিফার ফেরদৌস তার ‘আশীর্বাদ’ ছবির প্রধান নারী চরিত্র সুবর্ণার জন্য নায়িকা খুঁজছিলেন। অবশেষে গত ১৫ আগস্ট অপু বিশ্বাসকে চূড়ান্ত করেন। তার সঙ্গে আনুষ্ঠানিক চুক্তিও হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এ ছবিতে অপুকে নেয়া হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন তিনি।
কারণ হিসেবে প্রযোজক জেনিফার বলেন, ‘অপু বিশ্বাসকে এ ছবির জন্য চুক্তিবদ্ধ করা হলেও অপেশাদারিত্ব কারণে তাকে বাদ দেওয়া হয়েছে।’
অপুকে বারণ করা হলেও তিনি অনুমতি ছাড়াই সোশ্যাল মিডিয়ায় তার সঙ্গে আমাদের চুক্তিবদ্ধ হওয়ার ছবি এবং আমার করা ভিডিও তার ইউটিউব চ্যানেলে ব্যবহার করে আপলোড দিয়েছেন। এমনকি আমার সঙ্গে আলোচনা ছাড়াই গণমাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য দিচ্ছেন। আমি প্রযোজক, ব্যবসায়িক স্বার্থে প্রচারণার বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করার অধিকার নিশ্চয়ই আমার আছে। কিন্তু পেশাদারিত্বের এই বিষয়টি রক্ষা করতে পারেননি অপু।
এ বিষয়ে অপু বিশ্বাস বলেন ভিন্ন কথা। তার বক্তব্য, ‘আমি নিজেই ব্যক্তিগত কারণে ছবিটি ছেড়ে দিয়েছি। আমাকে ছবিটিতে অভিনয় করার বিপরীতে কিছু শর্ত দেয়া হয়েছে, যা ক্যারিয়ারের এই সময়ে এসে মানা সম্ভব নয়। এটা আমার কাছে একজন অভিনেত্রী হিসেবে অপমানের মনে হয়েছে। তাই প্রযোজক ও পরিচালকের সঙ্গে শান্তিপূর্ণ আলোচনার মাধ্যমেই জানিয়ে দিয়েছি ছবিটি আমার পক্ষে করা সম্ভব নয়। ক্যারিয়ারে এটা স্বাভাবিক ঘটনা। একে নিয়ে জল ঘোলা না করার অনুরোধ রইলো সবার কাছে।’
২০১৯-২০ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে পূর্ণদৈর্ঘ্য ১৬টি চলচ্চিত্রকে অনুদান দেয়া হয়েছে। এগুলোর মধ্যে ‘আশীর্বাদ’ একটি। জেনিফার ফেরদৌস এ ছবিটি প্রযোজনার পাশাপাশি কাহিনি ও চিত্রনাট্য রচনা করেছেন। সংলাপ লিখেছেন আব্দুল্লাহ জহির বাবু।