পোল্ট্রি শিল্পের বিকাশে সকল সহযোগিতা দেয়া হবে: মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম

রাজধানীর সচিবালয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম

নিজস্ব প্রতিবেদক
পোল্ট্রি শিল্পের বিকাশে প্রয়োজনীয় সকল সহযোগিতা দেয়া হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।
রবিবার (২৩ আগষ্ট) রাজধানীর সচিবালয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী এ বিষয়ে আশ্বস্ত করেন।
মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ, অতিরিক্ত সচিব কাজী ওয়াছি উদ্দিন, বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাহ্ হাবিবুল হক, সহসভাপতি মেজর (অবঃ) আনিসুর রহমান, মহাসচিব ডাঃ মনজুর মোরশেদ খানসহ অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।
অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিদের উদ্দেশে এসময় মন্ত্রী বলেন, আপনাদের সকল প্রকার সহযোগিতা করতে আমরা সবসময় প্রস্তুত। এখন প্রতিযোগিতামূলক বাজার। প্রতিযোগিতামূলক বাজারে আপনারা এগিয়ে গেলে একসময় বিদেশি প্রতিষ্ঠান এখান থেকে চলে যেতে পারে। দেশের মানুষকে আকৃষ্ট করার জন্য পোল্ট্রি থেকে তৈরীকৃত খাবারে বৈচিত্র্য আনতে হবে। গবেষণার মাধ্যমে মাংসের বহুজাতিক ব্যবহার বাড়াতে হবে।”
তিনি বলেন, “পোল্ট্রি আমাদের দেশে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এটা অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে, অর্থনীতির গতিকে সচল করার ক্ষেত্রে, কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে এবং মাংসের চাহিদা মেটানোর ক্ষেত্রে। অনেক শিক্ষিত তরূণ এ খাতে কাজ করতে আগ্রহী হচ্ছে। পোল্ট্রিকে একটি শিল্পে পরিপূর্ণভাবে রূপান্তর এবং আরো মর্যাদাপূর্ণ খাতে পরিণত করার জন্য আমরা অবশ্যই কাজ করবো। আমরা চাই পোল্ট্রি শিল্পের বিকাশ হোক। আর এই বিকশিত শিল্পকে শুধু দেশেই নয়, দেশের বাইরেও ছড়িয়ে দিতে হবে।
অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধিদের উদ্দেশে মন্ত্রী আরো যোগ করেন, “বিদেশে হালাল মাংস আমদানির অনেক চাহিদা রয়েছে। সেই চাহিদা পূরণে আপনাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। বিদেশে মাংস, ডিম ও এ জাতীয় পণ্যের বাজার সম্প্রসারণে প্রয়োজনে ক্যাম্পেইন করতে হবে, লবিস্ট নিয়োগ করতে হবে, চেম্বার অব কমার্সের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক যোগাযোগ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেসরকারি উদ্যোগ ও বিনিয়োগকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে থাকেন। শেখ হাসিনা সরকার অবশ্যই এ ব্যাপারে সকল সহযোগিতা প্রদান করবে।”