১৫ ও ২১ আগস্ট রাজনীতিতে অলঙ্ঘনীয় দেয়াল সৃষ্টি করেছে :ওবায়দুল কাদের

ওবায়দুল কাদের- ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর বাংলাদেশের রাজনীতিতে পারস্পরিক সম্পর্কের যে অলঙ্ঘনীয় দেয়াল সৃষ্টি করা হয়েছিল ২১ আগস্ট শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা সেই দেয়ালকে আরও উঁচু করেছে বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার (২৪ আগস্ট) আইভি রহমানের ১৬তম মৃত্যুবার্ষিকীতে বনানী কবরস্থানে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

কাদের বলেন, ‘১৫ আগস্টের প্রাইম টার্গেট ছিলেন বঙ্গবন্ধু। ২১ আগস্টের প্রাইম টার্গেট ছিলেন শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বাংলাদেশের রাজনীতিতে যে অলঙ্ঘনীয় দেয়াল পারস্পরিক সম্পর্কের সৃষ্টি করা হলো ২১ আগস্ট শেখ হাসিনাকে টার্গেট করে সেই দেয়াল আরও উঁচু করা হয়েছে। সম্পর্ক কারা নষ্ট করেছেন? আজ অনেকে রাজনৈতিক সম্পর্কের কথা বলেন। এ ব্যাপারে শেখ হাসিনাই হচ্ছেন সর্বশ্রেষ্ঠ উদাহরণ। বেগম জিয়াকে তিনি আমন্ত্রণ করেছিলেন গণভবনে। সেদিন কী অশ্রাব্য ভাষায় শেখ হাসিনার সঙ্গে ব্যবহার করা হয়েছে আপনাদের বোধ হয় মনে আছে।’

খুনি ও খুনের আশ্রয়দাতা সমান অপরাধী মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমান যদি বঙ্গবন্ধুর খুনিদের আশ্রয়-প্রশ্রয় না দিতেন, দূতাবাসে চাকরি না দিয়ে পুরস্কৃত না করতেন, মোশতাকের ইনডেমনিটিকে আইনি রূপ না দিতেন এবং মোশতাকের বেনিফিশিয়ারি হিসেবে প্রধান সেনাপতি না হতেন তাহলে হয়তো ইতিহাসে ভিন্নভাবে দেখা যেতে পারতো। খুন যে করে আর খুনিকে যে প্রশ্রয় দেয়, খুনিকে যারা পুরস্কৃত করে, বিচারের পথ যারা রুদ্ধ করে, তারা একই অপরাধে অপরাধী।’

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সেই হত্যাকাণ্ড ধামাচাপা দিতে জজ মিয়া নাটক সাজানো হয়েছে। আলামত নষ্ট করেছে। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডকে আসতে দেয়নি। এফবিআইকে তদন্ত করতে দেয়নি। এই হত্যাকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড ছিল সেদিন হাওয়া ভবন। হরতাকুল জিহাদের মুফতি হান্নান বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে যা কিছু ঘটেছিল সেটা পরিচালনা করেছে হাওয়া ভবন থেকে তারেক রহমান। ইতিহাসের এ সত্যকে অসস্বীকার করবেন কীভাবে?’

বিএনপির সম্প্রতি বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আজকে মির্জা ফখরুল সাহেব শেখ হাসিনাকে টার্গেট করে বারবার কথা বলছেন। তাদের নেতাকে নাকি ছোট করা হয়েছে। আমি তাকে জিজ্ঞাসা করতে চাই, আপনারা কি জিয়া হত্যার বিচার করেছেন? একাধিকবার ক্ষমতায় থেকে বিচার তো করেন নাই।’