রাজধানীর সবুজবাগে ৬ জনকে অচেতন করে বাসা লুট, গৃহকর্মী পলাতক

প্রতীকী

নিজস্ব প্রতিবেদক:
রাজধানীর সবুজবাগের দক্ষিণ রাজারবাগে একটি বাসায় ছয়জনকে রাতের খাবারের সঙ্গে চেতনানাশক কিছু খাইয়ে লুটপাট করা হয়েছে। এরপর থেকে ওই বাসার গৃহকর্মী পলাতক রয়েছেন। বুধবার দিনগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। তাদের মিটফোর্ট হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তারা হলেন- পারুল আক্তার (৪০), সেলিনা (৫০), জাহানারা বেগম (৭০), আবির (১৫), রুমানা (৫৭) ও নাফিজ (১৭)। বৃহস্পতিবার (২৭ আগস্ট) সবুজবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম জানান, ওই বাসায় কাজের মেয়ে রেখেছিল। রাতে ওই কাজের মেয়েই বাসার সবাইকে খাবারের সঙ্গে নেশাজাতীয় কিছু খাইয়ে চলে গেছেন বলে এটুকু জানতে পেরেছি। তবে বাসা থেকে কী কী নিয়েছে তা এখনও জানতে পারিনি। তিনি আরও জানান, পরিবারের সবাই হাসপাতালে রয়েছেন। তারা সুস্থ হলেই ঘটনার বিস্তারিত জানা যাবে। এখন পর্যন্ত পরিবারের কেউ থানায় এসে অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ভুক্তভোগীদের এক স্বজন ইসমাইল হাসান জানান, তিনি একই এলাকাতে থাকেন। পারুলের পরিবার ৯/১ বি, দক্ষিণ রাজারবাগে নিজেদের বাসায় থাকে। রাজধানীর একটি হাসপাতালে পারুলের মা সুরাইয়া বেগমের অপারেশন করা হয়। গত ২০ আগস্ট হাসপাতাল থেকে তাকে বাসায় নেওয়া হয়। এরপর তাকে দেখাশুনার জন্য লিমা (৩৫) নামে একটি কাজের মেয়ে রাখা হয়। গত ২৪ আগস্ট দুপুরে সুরাইয়া বেগম মারা যান।
তিনি আরও জানান, তার মৃত্যুতে সব স্বজনরা বাসায় আসেন। অধিকাংশই চলে গেলেও তারা কয়েকজন বাসায় ছিলেন। বুধবার রাতে গৃহকর্মী লিমা তার বোনসহ আরও এক নারীকে বাসায় আনেন। পরে তারা চলে যাওয়ার পর বাসার সবাইকে রাতের খাবার দেন লিমা। এ খাবার খেয়েই সবাই অচেতন হয়ে পড়েন।
পরে খবর পেয়ে স্বজনরা তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তাদের স্টোমাক ওয়াশ (পাকস্থলী পরিষ্কার) করার পর মিটফোর্ট হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। মিটফোর্ট হাসপাতালেই তাদের চিকিৎসা চলছে। ছয়জনেরই শারীরিক অবস্থা এখন ভালো।