কেনোশা সফরে পুলিশকে ট্রাম্পের সমর্থন

দেশের বাইরে ডেস্ক: বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ ব্যাপক আকার ধারণ করলেও উইসকনসিনের কেনোশা শহরে গেলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ২৩ আগস্ট এই শহরে কৃষ্ণাঙ্গ জ্যাকব ব্লেকের ওপর পুলিশি বর্বরতায় বিক্ষোভ চলছে। শহরজুড়ে ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এতে করে বিক্ষোভকারীদের প্রতি তীব্র নিন্দা জানিয়ে পুলিশের পাশেই দাঁড়ালেন ট্রাম্প।

দেশের মধ্যপশ্চিমের শহরে ‘ধ্বংসাত্মক’ কর্মকাণ্ডের জন্য ‘ঘরোয়া সন্ত্রাসকে’ দায়ী করলেন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট। একই সঙ্গে ‘ল অ্যান্ড অর্ডার’ আরও শক্তিশালী করার তাগাদা দিলেন তিনি। এই বিক্ষোভের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে যান ট্রাম্প। সেখান থেকে ফিরে স্থানীয় ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে গোলটেবিল বৈঠক করেন একটি হাইস্কুল জিমে।

বিক্ষোভকারীদের কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়ে ট্রাম্প বলেছেন, ‘এটা কোনোভাবেই শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ নয়, এটা তো ঘরোয়া সন্ত্রাস।’ মার্কিন পুলিশের কার্যক্রমকে সমর্থন জানিয়ে কেবল তাদের খারাপ খবরগুলো ছাপানোর জন্য সংবাদমাধ্যমকে দায়ী করেন তিনি।

অবশ্য পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত ব্যক্তিদের প্রতি সমবেদনা দেখিয়েছে ট্রাম্প। অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে তিনি বলেছেন, ‘এর ভেতর দিয়ে যারা গেছে, তাদের সবার জন্য তিনি ব্যথিত।’ তবে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীতে কোনও পদ্ধতিগত বর্ণবাদ ছিল তা বিশ্বাস করেন না তিনি।

বিক্ষোভের কারণে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে কেনোশার ব্যবসায়ীদের প্রায় ৪০ লাখ ডলার এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ১০ লাখ ডলার দেওয়া হবে জানান ট্রাম্প।