দ্রুত এগিয়ে চলছে মেট্রোরেলের কাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
রাজধানীর উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত পুরোদমে চলছে মেট্রোরেলের লাইন বসানো ও বিদ্যুৎ সঞ্চালনের কাজ। মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে উত্তরা দক্ষিণ স্টেশন। করোনা সংকটে যখন বিভিন্ন প্রকল্পের মেয়াদ ও ব্যয় বেড়েছে, তখন নির্ধারিত সময়েই কাজ শেষ করার পাশাপাশি খরচও বাড়বে না বলে আশা মেট্রো কর্তৃপক্ষের।

পেরিয়ে গেছে মধ্যরাত। চারপাশের সুনশান নীরবতা ভেঙে আগারগাঁওয়ের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র এলাকায় চলছে মেট্রোরেল প্রকল্পের দ্বিতীয় ধাপের কাজ। এখানে মেট্রোলাইনের পিয়ার হেড বসানো হচ্ছে। আগারগাঁও থেকে কারওয়ান বাজার পর্যন্ত ৯০টি খুঁটির ওপর বসবে পিয়ারহেড। আগস্ট মাস পর্যন্ত যার ৩৭টি বসানো হয়েছে।

এ এলাকা বাদেও এ পর্বে পুরোদমে কাজ চলছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাসহ ৩টি পয়েন্টে। প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দ্বিতীয় ধাপে আগারগাঁও থেকে কারওয়ান বাজার ও কারওয়ান বাজার থেকে মতিঝিল অংশের কাজ প্রায় অর্ধেকই শেষ হয়ে গেছে। তবে মেট্রো প্রকল্পের সবচেয়ে বেশি অগ্রগতি দৃশ্যমান উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশে। এ অংশে ৪ ভাগের ৩ ভাগ কাজই শেষ। দৃশ্যমান পৌনে ১২ কিলোমিটারের মধ্যে প্রায় ১১ কিলোমিটার উড়ালপথ। একযোগে চলছে, ৯টির মধ্যে ৬টি স্টেশন নির্মাণের কাজ।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি এম এ এন সিদ্দিক বলেন, ডিসেম্বরের ভেতরে আমাদের ৫টি মেট্রোরেল নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করতে হবে। ৮টা স্টেশনের ফেব্রিকেশন এরইমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। সেগুলো সংযোজন চলছে।

করোনা শনাক্তের আগে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ মাসে মেট্রোরেল প্রকল্পে কাজ হয়েছে প্রায় ৩ শতাংশ। কিন্তু মার্চে কোভিড পরিস্থিতি শুরু হওয়ার পর কাজ হয়েছে গড়ে ১ শতাংশ করে। যদিও নির্ধারিত সময়েই কাজ শেষ করার বিষয়ে আশাবাদী প্রকল্প ব্যবস্থাপক।

তাদের কথা হল, আগের অভিজ্ঞতা থেকে ৬ মাস কাভার করতে পেরেছি। এখন ৬ মাস কাভার করতে পারব, বেশি হলে চ্যালেঞ্জিং হবে। সার্বিকভাবে অর্ধেক কাজ শেষ হয়েছে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।