রাজধানীর পানি নিষ্কাশনে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল পুনরুদ্ধারের উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
রাজধানীর বড় অংশের পানি নিষ্কাশন সমস্যা সমাধানে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল পুনরুদ্ধারে মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি)। এই মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে অন্তত ৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করা হবে। প্রায় সাড়ে ৭ কিলোমিটার দীর্ঘ চ্যানেলটি পুরান ঢাকার মুসলিমবাগে আদি চ্যানেলটির শুরু থেকে রায়ের বাজার বেড়িবাঁধ সড়কের পশ্চিম পাশের খাল দিয়ে বুড়িগঙ্গা পর্যন্ত সংযুক্ত থাকবে। এই দীর্ঘ চ্যানেলের দুই পাশে থাকবে দৃষ্টিনন্দন সবুজ উন্মুক্ত স্থান ও বিনোদন স্পট। এছাড়া যোগাযোগ রক্ষা করতে পর্যাপ্ত সংখ্যক ব্রিজ ও ওভারপাস তৈরি করা হবে। এর ফলে কামরাঙ্গীরচর, ইসলামবাগ, লালবাগ শশ্মনঘাট, শহীদনগর, ঝাউচর, হাজারীবাগ সেকশন, কালুনগর, বউবাজার, সিকদার রিয়েল এস্টেট ও সিকদার মেডিকেল কলেজ এলাকাগুলোর মানুষের জীবন মানের উন্নয়ন ঘটবে। বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল পুনরুদ্ধার প্রকল্পে এরইমধ্যে জমি অধিগ্রহণ, চ্যানেল খনন, অবকাঠামো উন্নয়ন, ব্রিজ, ওভারপাস নির্মাণসহ সার্বিক উন্নয়ন কাজের সম্ভাব্য ব্যয় চিন্তা করা হচ্ছে অন্তত ৫ হাজার কোটি টাকা। প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই-বাছাইয়ের জন্য মিলিটারি ইন্সটিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিকে (এমআইএসটি) দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এরইমধ্যে ডিএসসিসির কাছে একটি খসড়া প্রস্তাবনা উপস্থাপন করেছে এমআইএসটি। ডিএসসিসির প্রকৌশলী, পরিকল্পনাবিদসহ সংশ্লিষ্টরা প্রকল্প বিষয়ে তাদের চিন্তা ও মতামত দিয়েছে। এমআইএসটি ডিএসসিসির ইচ্ছা ও উদ্দেশ্যের আলোকে প্রকল্পের নকশা প্রণয়নের কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে তারা প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই-বাছাই করে ডিএসসিসির কাছে হস্তান্তর করবে। এর ওপর ভিত্তি করে ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট প্রোফাইল (ডিপিপি) প্রস্তুত করা হবে।
এ প্রসঙ্গে ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, রাজধানীর পানি নিষ্কাশন সমস্যার সমাধানের লক্ষ্যে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল পুনরুদ্ধারে আমরা উদ্যোগ নিয়েছি। বর্তমানে এমআইএসটিকে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগ করা হয়েছে। তাদের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল পুনরুদ্ধারে কাজ করা হবে।
কামরাঙ্গীরচরের ৫৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন বলেন, বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল পুনরুদ্ধারে সরকারের কাছে আমাদের বহু দিনের দাবি। এ প্রকল্প বাস্তবায়নে স্থানীয় পর্যায় থেকে আমরা সব ধরনের সহযোগিতা দেব।
বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কে ডিএসসিসির দায়িত্বপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. খায়রুল বাকের বলেন, পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এমআইএসটি এরইমধ্যে কার্যক্রম শুরু করেছে। আশা করি দ্রুততম সময়ের মধ্যে তারা তাদের প্রতিবেদন ডিএসসিসিতে জমা দেবে। এরপর ডিএসসিসির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে।