দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে ক্ষমা চাইলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন

বাহিরের দেশ ডেস্ক:

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইনের অফিস জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন দেশটির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে দক্ষিণ কোরিয়ার একজন সরকারি কর্মকর্তাকে উত্তর কোরিয়া সেনারা গুলি করে হত্যার পর পোড়ানোর ঘটনায় ক্ষমা চাইলেন কিম। খবর বিবিসির।

খবরে বলা হয়েছে, এ ধরনের ঘটনা ঘটা উচিত ছিল না বলে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টকে বলেছেন কিম।

দক্ষিণ কোরিয়া জানিয়েছে, ৪৭ বছর বয়সী দক্ষিণ কোরিয়ার ওই কর্মকর্তা উত্তর কোরিয়াকে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। পরে তাকে ভাসমান অবস্থায় উত্তর কোরিয়ার জলসীমায় খুঁজে পায় দেশটির সেনারা।

সিউল জানিয়েছে, ওই কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যার পর তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়।

করোনাভাইরাসের বিস্তারের রোধে সীমান্তে সুরক্ষা জোরদার করেছে উত্তর কোরিয়া। এমনকি ‘দেখামাত্র গুলি করে হত্যার’ নির্দেশও দিয়েছে উত্তর কোরিয়া।

দক্ষিণ কোরিয়ার একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, চিঠি পাঠিয়ে প্রেসিডেন্ট মুনের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন কিম। এছাড়া এ ধরনের ঘটনা ঘটা উচিত ছিল না বলেও তিনি চিঠিতে উল্লেখ করেছেন বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ভবন ব্লু হাউজের বরাত দিয়ে সংবাদ সংস্থা ইয়োনহাপ জানিয়েছে, কিম ‘খুব দুঃখ’ পেয়েছেন এবং মুনের প্রতি ‘হতাশা প্রকাশ’ করেছেন।

এদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার ওই কর্মকর্তার ঘটনায় আরও তথ্য প্রকাশ করেছে উত্তর কোরিয়া। সেখানে বলা হয়েছে, ওই ব্যক্তিকে ১০ বার গুলি করা হয়েছে।

এছাড়া ওই ব্যক্তির মৃতদেহ নয়, বরং তিনি যেটিতে ভেসে এসেছিলেন সেই নৌকাকে পুড়িয়ে দিয়েছে উত্তর কোরিয়ার সেনারা বলে জানিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তার পরিচালক সু হুন।