বিএনপি-জামায়াতের বিষয়ে সতর্ক থাকার আহ্বান ফারুক খানের

নিজস্ব প্রতিবেদক:

‘বাংলাদেশে এখনও বিএনপি-জামায়াত রাজনীতি করছে। তারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে।
জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করেছে। সুতরাং তাদের বিষয়ে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। ’

শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে শহীদ ময়েজউদ্দিনের ৩৬তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘সন্ত্রাসমুক্ত সমাজ গঠনে শান্তি ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা জনপ্রতিনিধি ও পেশাজীবীদের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও স্মরণসভায় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কর্নেল (অব.) ফারুক খান এসব কথা বলেন। এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে শহীদ ময়েজউদ্দিন স্মৃতি সংসদ।

ফারুক খান বলেন, তার মতন সাহসী দেশপ্রেমিক নির্ভরশীল মানুষ হতে হবে। এখন রাজনীতিকে কলঙ্কিত করার চেষ্টা হচ্ছে। যুব-সমাজের কিছু কর্মকাণ্ডে রাজনীতি কলঙ্কিত হচ্ছে। এমন সময় শহীদ ময়েজউদ্দিনের জীবনাদর্শ থেকে সবাইকে শিক্ষা নিতে হবে।

সভার প্রধান বক্তা মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, শহীদ ময়েজউদ্দিন গ্রামে গ্রামে ঘুরে ছয় দফার পক্ষে জনমত গঠন করেছিলেন। আগরতলা মামলায় যখন বঙ্গবন্ধুর পক্ষে আইনজীবী পাওয়া যাচ্ছিলো না তখন তিনি মুজিব ফান্ড গঠন করেছিলেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তিনি মুজিব ফান্ডের আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার পর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সংগঠিত করেছিলেন। সেসঙ্গে ১৯৭৬ সালের ১৫ আগস্ট গাজীপুরে তিনি বঙ্গবন্ধুর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করেন। তিনি ছিলেন অকুতোভয়। নেতাকর্মীদের নেতৃত্ব দিতে দিতে নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন।

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, সবাকিছুকে পেছনে ফেলে শহীদ ময়েজউদ্দিন দেশের জন্য কাজ করেছেন। দলকে ভালোবেসে আত্মত্যাগ করেছেন।

জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, শহীদ ময়েজউদ্দিন গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছেন। স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাতে তার মৃত্যু হয়েছে। তার কর্ম ও দর্শন নতুন প্রজন্মকে জানাতে হবে।

শহীদ ময়েজউদ্দিনের কন্যা ও সংসদ সদস্য মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, আমার বাবাকে রাজনীতিবিদ থেকে সমাজকর্মী হিসেবে এলাকার মানুষ বেশি চেনেন। তিনি সমাজের নানা অসঙ্গতি নিয়ে কাজ করেছেন। তিনি দেশে প্রথম পরিবার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ শুরু করেন।