মেঘনা নদীতে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে রুপালী ইলিশ

ফাইল ছবি

ঘাটগুলোতে ফিরেছে কর্মচাঞ্চল্য

নোয়াখালী প্রতিনিধি:
করোনাভাইরাসের কারণে কয়েক মাস নদীতে মাছ ধরা বন্ধ থাকার পর বর্তমানে হাতিয়ার মেঘনা নদীতে মাছ ধরায় ব্যস্ত জেলেরা।

নদীতে জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ধরা পড়ছে অনেক বড় বড় রুপালী ইলিশ। জেলে পল্লীতে বিরাজ করছে আনন্দঘন পরিবেশ।

হাতিয়া মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. ইসমাইল জানান, নোয়াখালীর উপকূলীয় উপজেলা হাতিয়ার অর্থনীতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণ করে মেঘনার ইলিশ।

এসব এলাকায় লকডাউন উঠে যাওয়ায় কাজে ফেরার সুযোগ পেয়ে স্বস্তিতে জেলেরা। করোনায় কয়েক মাস বন্ধ থাকার পর আবারও কর্মচাঞ্চল্য শুরু হয়েছে মাছের ঘাটগুলোতে। নদীতে শত শত নৌকা ও ট্রলার নিয়ে নতুন উদোমে মাছ শিকার করছে জেলেরা। নদীতে জলদস্যুদের হয়রানি না থাকায় স্বাধীন চলায় স্বস্তিতে ব্যবসায়ী নেতারা।

মাছের বাজার নিয়ে ব্যবসায়ীরা কিছুটা স্বস্তি ও সন্তুষ্টিতে থাকলেও ভিন্ন সুর প্রকাশ ক্রেতাদের।

চেয়ারম্যান ঘাট বাজারের সেলুন দোকানি বিশ্বজিত (৪০) জানান, নদীতে প্রচুর ইলিশ পাওয়া গেলেও মূল্য অনেকটা চওড়া। অন্যান্য বছরের চাইতে এ বছর অনেক বড় বড় ইলিশ বাজারে উঠলেও মাছের দাম ক্রয় ক্ষমতার বাইরে বলেও অভিযোগ তার। এছাড়া স্থানীয় বাজার থেকে প্রতিদিন ট্রাকে মাছ চলে যাচ্ছে রাজধানীসহ বিভিন্ন বড় বড় বাজারে।

এ ব্যাপারে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড.মোতালেব হোসেন বলেন, নোয়াখালীতে এ বছর ইলিশের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২০ থেকে ২১ হাজার মেট্রিক টন। জেলায় জেলের সংখ্যা নিবন্ধিত রয়েছে চল্লিশ হাজার বিরাশিজন। বর্তমানে উপকূলীয় এলাকার পরিবেশ ও আবহাওয়া মাছের প্রজননের অনুকূলে থাকায় নদীতে জেলেদের জালে প্রচুর মাছ ধরা পড়ছে।