সালাউদ্দিন টানা চতুর্থবারের মতো বাফুফের সভাপতি

মাঠে-মাঠে ডেস্ক
নানা ঘটনার মধ্য দিয়ে শেষ হল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন। শনিবার (৩ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত নির্বাচনে টানা চতুর্থবারের মতো জয়লাব করেছেন কাজী সালাউদ্দিন।

সভাপতি পদে সালাউদ্দিনের বিপক্ষে ছিলেন আরো দুইজন। তারা হলেন স্বতন্ত্রভাবে দাঁড়ানো সাবেক দুই ফুটবলার- বাদল রায় এবং শফিকুল ইসলাম মানিক।

প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে আজ সকাল ১১টায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হওয়ার মাধ্যমে কার্যক্রম শুরু হয়। দুপুর ২টায় শুরু হয় ভোটের লড়াই। সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন ১৩৭ জন প্রতিনিধি। ১৩৯ জন আসার কথা থাকলেও তরফদার রুহুল আমিন ও ফরিদপুরের নাজমুল ইসলাম খন্দকার অনুপস্থিত ছিলেন।

কাজী সালাউদ্দিনের দুই প্রতিদ্বন্দ্বীকে শুরু থেকেই দুর্বল হিসেবে উল্লেখ করেছিলেন বিশ্লেষকরা। তবে সালাউদ্দিন নিজে জানিয়েছিলেন, প্রতিপক্ষকে তিনি কখনোই দুর্বল

ভাবেন না। বাদল রায় এবং শফিকুল ইসলাম মানিক দুজনেই পরিবর্তনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তবে ভোটাররা আস্থা রেখেছেন পুরনো রাজার ওপরই।

কাজী সালাউদ্দিন দেশের সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলার। তিনিও পরিবর্তনের আওয়াজ তুলে এসেছিলেন বাফুফের পরিচালনার দায়িত্বে। গত এক যুগে তার

সবচেয়ে বড় কৃতিত্ব, সারা বছর মাঠে ফুটবল রাখতে পেরেছিলেন।

একনজরে দেখে নিন বাফুফে নির্বাচনে কে কোন প্যানেলে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন:

সম্মিলিত পরিষদ

সভাপতি: কাজী মো. সালাউদ্দিন।

সিনিয়র সহসভাপতি: আবদুস সালাম মুর্শেদী।

সহসভাপতি: কাজী নাবিল আহমেদ, আমিরুল ইসলাম বাবু, ইমরুল হাসান, আতাউর রহমান মানিক।

সদস্য: হারুনুর রশিদ, শওকত আলী খান জাহাঙ্গীর, সত্যজিৎ দাশ রুপু, ইলিয়াছ হোসেন, বিজন বড়ুয়া, অমিত খান শুভ্র, ইকবাল হোসেন, মাহিউদ্দিন আহমেদ

সেলিম, মো. জাকির হোসেন, মাহফুজা আক্তার কিরণ, আসাদুজ্জামান মিঠু, কামরুল হাসান হিলটন, সৈয়দ রিয়াজুল করিম, ইমতিয়াজ হামিদ সবুজ ও নুরুল ইসলাম নুরু।