এবার ঈশ্বরদীতে বেড়েছে দূর্গাপূজার সংখ্যা

সুবর্না অধিকারী, ঈশ্বরদী (পাবনা): শুরু হয়েছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দূর্গোৎসব। পঞ্জিকা অনুযায়ী, ২২ অক্টোবর মহাষষ্ঠী তিথিতে হয়েছে বোধন। আগামীকাল সপ্তমী পূজার মাধ্যমে শুরু হচ্ছে দুর্গোৎসবের মূল আচার অনুষ্ঠান। আগামী ২৬ অক্টোবর মহাদশমীতে বিসর্জনে শেষ হবে দুর্গোৎসবের আনুষ্ঠানিকতা।
এ বছর মহালয়া অনুষ্টিত হয়েছে ১৭ সেপ্টেম্বর। পঞ্জিকার হিসাবে এবার আশ্বিন মাস ‘মল মাস’, মানে অশুভ মাস। সে কারণে এবার আশ্বিনে দেবীর পূজা হচ্ছে না। পূজা হচ্ছে কার্তিক মাসে। সেই হিসাবে এবার দেবী দুর্গা ‘মর্ত্যে আসছেন’ মহালয়ার ৩৫ দিন পরে।
ঈশ^রদী পৌরসভা ও সাতটি ইউনিয়নে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে নানা প্রস্তুতি নিয়েছে সনাতন ধর্মালম্বীরা। মন্দিরে মন্দিরে শেষ হয়েছে পূজার সার্বিক প্রস্তুতি। এবছর ঈশ্বরদীতে পূজা বেড়েছে ২টি মন্দিরে। আর কমেছে ১টি মন্দির। গত বছর ঈশ^রদীতে মোট ২৭ টি পূজা মন্দিরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এই বছর ঈশ^রদীতে মোট ২৮ টি পূজা মন্দিরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
মন্দিরগুলো হলো মৌবাড়ীয়া শ্রী শ্রী দূর্গা মন্দির, বারোয়ারী ঠাকুরবাড়ী শ্রী শ্রী সত্য নারায়ণ বিগ্রহ মন্দির, কর্মকার পাড়া শ্রী শ্রী মাতৃ মন্দির, আমবাগান শ্রী শ্রী শিবশক্তি যোগমায়া মন্দির, রেলগেট শ্রী শ্রী মাতৃ মন্দির, কাচারীপাড়া শ্রী শ্রী হরে কৃষ্ণ সংঘ, আরামবাড়ীয়া পূর্বপাড়া শ্রী শ্রী শিব মন্দির, আরামবাড়ীয়া বারোয়ারী মন্দির, আরামবাড়ীয়া মধ্যপাড়া শ্রী শ্রী দূর্গা মন্দির, আরামবাড়ীয়া রায়পাড়া বারোয়ারী শ্রী শ্রী দূর্গা মন্দির, সাঁড়া ঘাটপাড়া শ্রী শ্রী কালী মন্দির, পাকশী সার্বজনীন পূজা মন্দির, রূপপুর মাতৃমন্দির, পাকুড়িয়া বারোয়ারী শ্রী শ্রী দূর্গা মন্দির, দাসপাড়া শ্রী শ্রী মাতৃ মন্দির, দিয়ার সাহাপুর শ্রী শ্রী পূজা মন্দির, রহিমপুর শ্রী শ্রী দূর্গা মন্দির, দাশুড়িয়া বারোয়ারী দেবক্রিয়া মন্দির, দাশুড়িয়া কলেজপাড়া বারোয়ারী মাতৃ মন্দির, মুলাডুলী ঘোষপাড়া সার্বজনীন মন্দির, ফরিদপুর শ্রী শ্রী দূর্গা মন্দির, ও পতিরাজপুর শ্রী শ্রী শিবকালী মন্দির।
সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে পূজা উদযাপনের লক্ষ্যেপূজা পরিচালনা কমিটি ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়েছে নানা প্রস্তুতি। অন্যদিকে পুজা উপলক্ষে হিন্দুধর্মাবলম্বীদের ঘরে ঘরে চলছে নানা আয়োজন।
উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুনীল চক্রবর্তী জানান, সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে পূজা উদযাপনের লক্ষ্যে এরই মধ্যে কয়েকদফা বৈঠক করা হয়েছে। আশা রাখছি প্রতিবছরের ন্যায় এই বছরও সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে দুর্গোৎসব সম্পন্ন করব।
থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ নাসির জানান, শারদীয় উৎসব নিরাপদ ও নির্বিঘ্নে করতে পুলিশ প্রশাসন সার্বিক ব্যবস্থা নিয়েছে। শারদীয় উৎসবের প্রতিদিন টহল পুলিশ অব্যাহত থাকবে এবং সাদা পোশাকে নিরাপত্তা বাহিনী অবস্থান করবে।