সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্ত আরও ৪ লাখ, মৃত্যু সাড়ে ৪ হাজার

বাহিরের দেশ ডেস্ক: সারাবিশ্বে করোনায় আক্রান্ত আরও ৪ লাখ, মৃত্যু সাড়ে ৪ হাজার মানুষের। বিশ্বজুড়ে থামছে না করোনার প্রকোপ। যেখানে নতুন করে ৪ লাখের বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। প্রাণহানি ঘটেছে আরও সাড়ে চার হাজার ভুক্তভোগীর। যার অধিকাংশই যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, ব্রাজিলের নাগরিক। সুস্থতা বাড়লেও সংক্রমণের তুলনায় তা অনেক কম।

বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪ লাখ ৪ হাজার ৭৯৩ জনের দেহে। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ কোটি ৩৩ লাখ ২৩ হাজার ৪৫৩ জনে। নতুন করে ৪ হাজার ৪৯৮ জন মারা যাওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১ লাখ ৫৮ হাজার ৮১০ জনে ঠেকেছে।

আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থতা লাভ করেছেন ৩ কোটি ১৮ লাখ ৯৬ হাজারের বেশি ভুক্তভোগী। এর মধ্যে গত একদিনেই বেঁচে ফিরেছেন প্রায় ২ লাখ ৩৬ হাজার রোগী।

ভোটের আমেজের মধ্যেই গত একদিনে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। যার সবকটি অঙ্গরাজ্যেই বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮৮ লাখ ৮৯ হাজার ১৭৯ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ ৩০ হাজার ৫১০ জনের।

সংক্রমণের হারে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৭৯ লাখ ৯ হাজার ৫০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ১৯ হাজার ৩০ জনের।
প্রাণহানিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ও সংক্রমণে তিনে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত করোনার শিকার ৫৩ লাখ ৯৪ হাজার ১২৮ জন মানুষ। মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৫৭ হাজার ১৬৩ জনের।

চারে থাকা রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত করোনার ভুক্তভোগী ১৫ লাখ ১৪ হাজারের কাছাকাছি। এর মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ২৬ হাজার ৫০ জন।

ইউরোপীয় অঞ্চলের দেশগুলোতে মাঝে কিছুটা স্থির হলেও সেখানে আবারও নতুন করে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। এর মধ্যে শীর্ষ পাঁচ দেশের তালিকায় এবার স্পেনকে পেছনে ফেলেছে ফ্রান্স। যেখানে এখন পর্যন্ত করোনা হানা দিয়েছে ১১ লাখ ৩৮ হাজারের বেশি মানুষের দেহে। এর মধ্যে প্রাণ ঝরেছে ৩৪ হাজার ৭৬১ জনের।

ছয়ে থাকা থাকা স্পেনে ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১১ লাখ ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। প্রাণহানি ঘটেছে ৩৪ হাজার ৭৫২ জনের। দেশটিতে ভাইরাসটি প্রকোপ ঠেকাতে নতুন করে কারফিউয়ের পাশাপাশি জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। যা রাত ১১টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত বলবৎ থাকবে বলে জানিয়েছে স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী এ পর্যন্ত ১৮৯টি দেশে ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

এদিকে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী গতকাল রোববার পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৯৮ হাজার ৮১৫ জন। এর মধ্যে ৩ লাখ ১৫ হাজার ১০৭ জন সুস্থতা লাভ করলেও প্রাণহানি ঘটেছে ৫ হাজার ৮০৩ জনের।