নান্দাইলে সমাজ রুপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের সহায়তায় বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেলো সুবর্ণা

আরএন শ্যামা, নান্দাইল: ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইলে সমাজ রুপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের সহায়তায় বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেলো সুবর্ণা নামের এক কিশোরী।
জানাগেছে, গত মঙ্গলবার ময়মনসিংহ হেল্পলাইন ফেসবুক পেজে ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল উপজেলার দিন জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নের দেউলডাংরা গ্রামের আজিজুল হকের নবম শ্রেনী পড়ুয়া মেয়ে সুবর্ণা আক্তারের বাল্য বিয়ের খবর প্রকাশিত হয়। ফেসবুক পেজে সুবর্ণা আক্তারকে জোড়করে বিয়ে দেয়ার খবর পেয়ে সমাজ রুপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের ময়মনসিংহ জেলার সাধারণ সম্পাদক মো: রেজাউল ইসলাম নান্দাইল উপজেলা সমাজ রুপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের সভাপতি এ হান্নান আল আজাদকে বিষয়টি অবহিত করেন। এ ঘটনা শোনার এ হান্নান আল আজাদ দেউলডাংরা ভূইয়া বাড়ি একাডেমির প্রধান শিক্ষকসহ সুবর্ণার বাড়িতে গেলে ঘটনার সত্যতা পেয়ে নান্দাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শরণাপন্ন হয়। পরে উপজেলা সদরে সুবর্ণা আক্তার বাবা, মা ও পরিবারের লোকজনকে নিয়ে নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং নান্দাইল সমাজ রুপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের সভাপতি এ হান্নান আল আজাদ, সাংগাঠনিক সম্পাদক আব্দুল কাদেরসহ একটি সালিশি সভার আয়োজন করা হয়। ওই সালিশি সভায় ছাত্রীর বাবা মা ১৮ বছরের আগে যাতে মেয়েকে বিয়ে না দিতে পারে সে মর্মে লিখিত অঙ্গীকার নামা নেয় উপজেলা প্রশাসন। এদিকে ওই পরিবারের আর্থিক সহযোগীতার হাত বাড়িয়েছে প্রশাসন। পরে খরচ যোগাতে উপজেলা নিবাহী অফিসার সুবর্ণার পরিবারকে প্রতিমাসে ৩০ কেজি করে ভিজিডি চাল বরাদ্দ করে। যা চলমান থাকবে আগামী দুই বছর। তাছাড়াও স্কুল কর্তৃপক্ষ সূবর্ণারকে দুই বছর বিনা বেতনে লেখাপড়া করার সুযোগ করে দেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও স্থানীয় সমাজ রূপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের সভাপতি এ হান্নান আজাদ ও সমাজ রূপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের সাংগাঠনিক সম্পাদক আঃ কাদের ভূইঁয়ার সহযোগীতা ওই পরিবার আর্থিকভাবে সহযোগীতা পাবেন। সুবর্ণা আক্তার বর্তমানে দেউলডাংরা ভূইয়া বাড়ি একাডেমিতে নবম শ্রেনীর লেখাপড়া করছে।
সুবর্ণা আক্তারের বাবা আজিজুল হক জানান, আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল থাকার কারনে মেয়েকে সংসারের বোঝা ভেবে বিয়ে দিতে রাজি হয়ে ছিলেন। তাছাড়া বাল্য বিয়ে দেয়া যে অপরাধ ছিল, সেটা তার জানা ছিল না। তিনি এখন আইন প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে মেয়েকে লেখা পড়া শেখাবেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, সমাজ রুপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের মতো সামাজিক সংগঠন এগিয়ে না আসলে হয়তো কোন দিন জানতামেই না যে, বাল্য বিয়ে দেয়া আইনতদণ্ডনীয় অপরাধ। তিনি সমাজ রুপান্তর সাংস্কৃতিক সংঘের ময়মনসিংহ জেলার সাধারণ সম্পাদক মো: রেজাউল ইসলাম, নান্দাইল কমিটির সভাপতি এ হান্নান আল আজাদ ও সাংগাঠনিক সম্পাদক আঃ কাদের ভূইঁয়াসহ সংগঠনের সকলকে অভিনন্দন জানান।