করোনা টিকা নিয়ে দেশের মানুষের উৎকন্ঠা কমছে না : গোলাম মোহাম্মদ কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা জনবন্ধু গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, করোনার টিকা আবিস্কার হলেও করোনা টিকা নিয়ে দেশের মানুষের উৎকন্ঠা কমছে না। দেশের মানুষ জানেনা, কবে এবং কিভাবে তারা টিকা পাবেন। তিনি বলেন, ভারতের সাথে তিন থেকে পাঁচ কোটি টিকার জন্য সরকার চুক্তি করেছে। তাতে দেড় থেকে আড়াই কোটি মানুষ হয়তো টিকা পাবে। কিন্তু বাকী ১৫/১৬ কোটি মানুষ কিভাবে কিটা পাবে তা কেউই জানেনা। আবার নতুন ধরনের করোনা আবিস্কার হয়েছে। এর বিস্তার বেড়ে গেলে দেশের মানুষের অবস্থা ভয়াবহ হবে। জেলা ও বিভাগীয় শহরে করোনার কোন চিকিৎসা নেই। রাজধানীর সরকারী ২/১টি হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা আছে। আর বেসরকারী পর্যায়ে বেশ কিছু হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা রয়েছে। কিন্তু তা এতই ব্যয়বহুল যে সাধারন মানুষের পক্ষে বেসরকারী হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা নেয়া সম্ভব নয়।

তিনি বলেন, করোনা প্রকিরোধে টিকা সরবরাহ, পরিবহন ও বিতরণে কি ব্যবস্থা সরকার নিয়েছে তা কেউ জানেনা। কারা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা পাবে তারও কোন নীতিমালা আছে বলে আমাদেও জানান নেই। ভেজাল খাবার, দুষিত পানি ও বায়ুর সাথে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বেঁচে দেশের মনুষের শরীরে সহনশীলতা সৃষ্টি হয়েছে। তাই করোনায় দেশে মৃত্যুর হার অনেক কম। তিনি বলেন, এমন অবস্থায় দেশের মানুষ কিছুটা চিকিৎসা পেলেও করোনায় মৃত্যুও সংখ্যা খুবই সামান্য হতো। করেনায় দেশের মৃত্যুর হার অনেক কম হলেও তাতে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের কোন কৃতিত্ব নেই। এখনো হাসপাতাল গুলোতে প্রয়োজনীয় সংখ্যক চিকিৎসক নেই। সরকারী কিছু হাসপাতালে করোনা চিকিৎসা উন্নত করতে কাজ শুরু হয়েছে তা কবে শেষ হবে তা কেউই জানেনা।
এসময় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের আরো বলেন, পৃথিবীর অনেক দেশেই চাল রফতানী করেনা। কারন প্রয়োজনে অনেক টাকা দিয়েও চাল পাওয়া যায়না। তাই বেশী টাকা খরচ করে হলেও সরকারী ভাবে চাল মজুদ করা জরুরী।
আজ দুপুরে রাজধানীর বিজয় নগর এলাকায় হোটেল চুংওয়াহ মিলনায়তনে জাতীয় পার্টি খুলনা বিভাগীয় অতিরিক্ত মহাসচিব ও প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপা’র সভাপতিত্বে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এ কথা বলেন।
জাতীয় পার্টির সাহিত্য ও কৃষ্টি বিষয়ক সম্পাদক সুমন আশরাফ এর সঞ্চালনায় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু বলেন, দেশে সুশাসনের অভাব রয়েছে। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ উন্নয়ণের সাথে সুশাসন দিতে সমর্থ হয়েছিলেন। তাই দেশের মানুষ এখ জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট ক্ষমতায় দেখতে চায়। তিনি বলেন দেশের মানুষ প্রাণ খুলে কথা বলতে পারছেনা। গণমাধ্যম কর্মীরা প্রকৃত তথ্য তুলে ধরতে পারছেনা। জুলুম, নির্যাতন, অন্যায়, অবিচার এর বিরুদ্ধে ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে গোলম মোহাম্মদ কাদের এর নেতৃত্বে জাতীয় পার্টি আগামী দিনে দেশের মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করবে। এসময় বক্তৃতা করেন- জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সিলেট বিভাগীয় অতিরিক্ত মহাসচিব এটিইউ তাজ রহমান, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা বিভাগীয় অতিরিক্ত মহাসচিব লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় অতিরিক্ত মহাসচিব এড. রেজাউল ইসলাম ভুইয়া, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা জহিরুল আলম রুবেল, নাজনিন সুলতানা, ভাইস চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মধু, সাংবাদিকদের মধ্যে বক্তৃতা করেন, জাতীয় প্রেস ক্লাবের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আশরাফ আলী, ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের প্রধান বার্তা সম্পাদক আশীষ সৈকত, দৈনিক ইত্তেফাক এর জৈষ্ঠ্য প্রতিবেদক শামসুদ্দিন আহমেদ, দৈনিক যুগান্তরের বিশেষ প্রতিনিধি শেখ মামুনুর রশীদ, বার্তা টুয়েন্টি ফোর এর বিশেষ প্রতিনিধি সেরাজুল ইসলাম, দৈনিক জনকন্ঠ এর জৈষ্ঠ্য প্রতিবেদক রাজন ভট্টাচার্য, দৈনিক যুগান্তরের সিনিয়র রিপোর্টার সিরাজুল ইসলাম।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টির যুগ্ম-মহাসচিব ফকরুল আহসান শাহজাদা, মোঃ বেলাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক এবিএম লিয়াকত হোসেন চাকলাদার, দফতর সম্পাদক সুলতান মাহমুদ, যুগ্ম-আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. জহিরুল হক।