আগামী ১৭ জানুয়ারি কাকরাইলে মা-ছেলেকে হত্যা মামলার রায়

আদালত প্রতিবেদক: ঢাকার কাকরাইলে আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম রোডের বাড়িতে শামসুন্নাহার ও তার ছেলে ‘ও” লেভেলের শিক্ষার্থী শাওনকে গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।ওই হত্যার অভিযোগে করা মামলায় তিন আসামির বিরুদ্ধে রায় ১৭ জানুয়ারি ঠিক করেছে আদালত।

রবিবার ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল ইসলামের আদালত যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে রায়ের জন্য এই দিন ঠিক করে।

এর আগে, যুক্তিতর্কের শুনানির জন্য তিন আসামিকে আদালতে তেলা হয়। এ সময় আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড চেয়ে আদালতে যুক্তি উপস্থাপন করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী।

অপরদিকে, নিজেদের নির্দোষ দাবি করে আদালতে যুক্তি তুলে ধরেন আসামিপক্ষের আইনজীবীরা। এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে ২২ জনের মধ্যে ১৭ সাক্ষী আদালতে সাক্ষ্য দেন।

২০১৮ সালের ১৬ই জুলাই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রমনা থানার পরির্দশক মো. আলী হোসেন নিহত শামসুন্নাহারের স্বামী আব্দুল করিম, করিমের দ্বিতীয় স্ত্রী শারমিন মুক্তা, মুক্তার ভাই আল-আমিন ওরফে জনিকে অভিযুক্ত করে চার্জশিটটি দাখিল করেন। এরপর ২০১৯ সালের ৩১শে জানুয়ারি ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল ইসলামের আদালত ওই তিন আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

গত ২০১৭ সালের ১ নভেম্বর সন্ধ্যায় কাকরাইলের আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম রোডের বাড়িতে শামসুন্নাহার ও তার ছেলে ‘ও” লেভেলের শিক্ষার্থী শাওনকে গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ওই ঘটনায় পরদিন ২রা নভেম্বর শামসুন্নাহারের ভাই আশরাফ আলী বাদী হয়ে রমনা থানায় হত্যা মামলা করেন।