বিশ্বের বিপজ্জনক কিছু সেলফি স্পট

ভ্রমণ ডেস্ক : ভ্রমণে গিয়ে ছবি না তুললে কি হয়! এখন তো সবাই ঘুরতে গিয়ে স্থান উপভোগের চেয়ে ছবি তুলতেই বেশি আগ্রহী। এ ছাড়াও ট্র্যাভেল সেলফি তো এখন ট্রেন্ড হয়ে গেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোয় ভ্রমণের ছবি শেয়ার না করলে বাহবা কুড়াবেন কীভাবে? তবে সব সময় সব স্থানে সেলফি নিতে গেলে পড়তে পারেন বিপদে।

গবেষণায় দেখা গেছে, বিগত কয়েক বছরে বিপজ্জনক স্থানে সেলফি তুলতে গিয়ে অনেকেই প্রাণ হারিয়েছেন। যদিও সেলফি আপনার জীবনের স্মরণীয় মুহূর্তগুলো ফ্রেমে বন্দি করে রাখে; তবে কিছু স্থানে সেলফি তোলার ক্ষেত্রে সতর্ক না থাকলে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।

চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক বিশ্বের বিপজ্জনক কিছু সেলফি স্পট সম্পর্কে-

পাম্পলোনা: স্পেনের পাম্পলোনায় প্রতিবছর অনুষ্ঠিত হয় বিখ্যাত ষাঁড় উৎসব। বিপজ্জনক এ উৎসবে ষাঁড়ের সঙ্গে দৌড়ায় মানুষ। এ খেলার মূল উদ্দেশ্য হলো, যদি কেউ ছুটন্ত ষাঁড়ের সঙ্গে দৌড়ে তার পিঠে উঠতে পারেন; তবে সে বিজয়ী। এ খেলায় অংশগ্রহণের সময় ষাঁড়ের পিঠে উঠতে গিয়ে অনেকেই মারাত্মভাবে জখম হন; অনেকে মারাও গেছেন। এ উৎসবের দর্শনার্থীরা স্বভাবতই সেলফি তুলতে মরিয়া হন। তখনই ঘটে অঘটন। ওই স্থানে যেন কেউ সেলফি না তোলেন, সে জন্য কর্তৃপক্ষ ৪ হাজার পাউন্ড পর্যন্ত জরিমানা ঘোষণা করেছে।

মাউন্ট হুয়া: চীনের মাউন্ট হুয়া খাড়া পর্বতে ওঠা বিপজ্জনক। কাঠের রাস্তা ধরে হেঁটে যেতে হয়। শরীরের ভারসাম্য হারালেই সোজা চলে যাবেন ৭ হাজার ৮৭ ফুট নিচে। পাহাড়ে ওঠার সময় পর্বতারোহীরা ওই কাঠের ওয়াকওয়ের উপর দাঁড়িয়ে তোলেন সেলফি। যা রীতিমতো ঝুঁকিপূর্ণ। ছবি তুলতে গিয়ে সেখান থেকে পড়ে গেলে বেঁচে থাকার উপায় নেই। সেলফি তুলতে গিয়ে সেখান থেকে শতাধিকেরও বেশি মানুষ পড়ে গিয়ে মারা গেছেন।

মার্কিন জাতীয় উদ্যান: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় উদ্যানে রয়েছে অনেক ভাল্লুক। আর উদ্যানে আগত দর্শনার্থীরা ভাল্লুকের সঙ্গে সেলফি তুলতে ব্যস্ত থাকেন। তাই উদ্যান কর্তৃপক্ষ ভাল্লুকের সঙ্গে সেলফি তোলার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। যদিও ভাল্লুকের আক্রমণের ঘটনা বিরল; তবে এদের শান্তির কথা বিবেচনা করে কর্তৃপক্ষ ভাল্লুকের সঙ্গে ছবি তুলতে নিষেধ করেছেন।

কিলাউইয়া: হাওয়াইয়ের কিলাউইয়ের পর্বতমালার জ্বলন্ত আগ্নেয়গিরির সঙ্গে তোলা সেলফি ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামে ঘুরছে। হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের অন্যতম সক্রিয় এ আগ্নেয়গিরি দেখতে দীর্ঘকাল ধরেই কৌতূহলীরা সেখানে ভিড় জমান। হাজার নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও অসতর্ক হয়ে দর্শনার্থীরা সেখানে সেলফি তোলেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, পর্বতমালার বিভিন্ন স্থানে ফাটল ধরায় যখন তখন আগ্নেগিরির বিস্ফোরণ ঘটতে পারে।

প্লিটভাইস হ্রদ জাতীয় উদ্যান: নায়াগ্রা জলপ্রপাত এবং ভিক্টোরিয়া জলপ্রপাতের মতো বিশ্বের শক্তিশালী জলপ্রপাতের তুলনায় ক্যাসকেড জলপ্রপাত অনেকটাই কম বিপজ্জনক। এ জলপ্রপাতের চূড়ায় উঠতে গিয়ে অনেকেই প্রাণ হারিয়েছেন। স্থানটি বেশ বিপজ্জনক। ফেসবুক-ইনস্টাগ্রামে লাইক, কমেন্টস পাওয়ার জন্য অনেকেই বিপজ্জনক এসব স্থানে গিয়ে সেলফি তোলেন। এতে মূল্যবান জীবনও হারিয়ে ফেলেন।