বিশ্বে প্রতি ৩ নারীর এক জন শারীরিক কিংবা যৌন সহিংসতার শিকার

অনলাইন ডেস্ক : বিশ্বে প্রতি তিন নারীর মধ্যে এক জন শারীরিক কিংবা যৌন সহিংসতার শিকার হন। করোনা মহামারিকালে এই নিপীড়নমূলক আচরণ আরও বেড়েছে। মঙ্গলবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এ তথ্য জানিয়েছে।

জাতিসংঘের এই সংস্থাটি বিশ্বের সরকারগুলোকে সহিংসতা প্রতিরোধ, ভিক্টিমের প্রতি সেবার মান উন্নয়ন এবং নারী ও কিশোরীদের আরোপিত অর্থনৈতিক অসমতা দূর করার আহ্বান জানিয়েছে। ছেলেদের স্কুলে পারস্পরিক শ্রদ্ধার বিষয়টি শেখানো প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন সংস্থার কর্মকর্তারা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক টেডরস আধানম গেব্রিয়াসাস বলেছেন, ‘নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিটি দেশ ও সংস্কৃতিতে ছড়িয়ে পড়েছে, যা কোটি কোটি নারী ও তাদের পরিবারের ক্ষতির কারণ এবং এটি করোনা মহামারিকালে বেড়েছে।’

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বের প্রায় ৩১ শতাংশ বা ৮৫ কোটি ২০ লাখ নারী শারীরিক কিংবা যৌন সহিংসতার শিকার। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই স্বামী কিংবা অন্তরঙ্গ পুরুষটিই নিপীড়ক এবং বিপুল সংখ্যক ভিক্টিম দরিদ্র দেশগুলোর বাসিন্দা। যৌন নিপীড়নের শিকার নারীদের প্রকৃত সংখ্যা অবশ্য এরচেয়ে অনেক বেশি। এর কারণ হচ্ছে, অধিকাংশ ক্ষেত্রে এসব ঘটনায় অভিযোগ করা হয় না।

প্রতিবেদনের লেখক ক্লডিয়া গার্সিয়া-মরিনো বলেন, ‘এই সংখ্যাগুলি অত্যন্ত মর্মান্তিক এবং বাস্তবিক অর্থে,সহিংসতা রোধে সরকারকে আরও বেশি কিছু করার আহ্বান এটি।