গাইবান্ধায় ধর্ষণের অভিযোগে আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে নেত্রীর মামলা

সংবাদদাতা, গাইবান্ধা: গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে আওয়ামী লীগ নেতা সাংবাদিক রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে তাঁতীলীগের এক নারী নেত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। বুধবার (৬ অক্টোবর) বিকেলে ওই নারী বাদী হয়ে রফিকুলকে আসামী করে পলাশবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

জানা যায়, ৩১ বছর বয়সী নারী নেত্রী পলাশবাড়ী তাঁতীলীগ উপজেলা কমিটির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক। অভিযুক্ত রফিকুল ইসলাম পলাশবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। তিনি বরিশাল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ওই নারী নেত্রীকে বিয়ের আশ্বাসে তার সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন রফিকুল ইসলাম। সম্পর্কের সূত্রধরে দীর্ঘদিন তিনি ঢাকার বিভিন্ন আবাসিক হোটেলসহ বাসা-বাড়ী ভাড়া করেও তার সঙ্গে অবাধে শারীরিক মেলামেশা করে রফিকুল। সম্প্রতি ওই নেত্রী বিয়ে করার চাপ দিলে নানা তালবাহনাসহ বিষয়টি বরাবরই এড়িয়ে যাচ্ছিলেন। এমন তালবাহানার গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ায় বিষয়টির বিস্তর জানাজানি হয়। কতিপয় দলীয় নেতাকর্মীসহ স্থানীয়রা বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করলেও রফিকুল শেষাবধি তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়।

এরপর ঘটনাটি ধামাচাপায় ক্ষমতার কূ-প্রভাব দেখিয়ে রফিকুল তাকে বিভিন্ন হুমকি-ধামকি দেয় বলে অভিযোগ নারী নেত্রীর। ফলে উপায়ন্তর হারিয়ে ওই নারী নেত্রী বাধ্য হয়ে রফিকুলের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।

পলাশবাড়ী থানা ওসি মো. মাসুদ রানা জানান, রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ওই নারী নেত্রী মামলা করেছেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাকে গাইবান্ধা হাসপাতালে পাঠানো হবে। অভিযুক্ত রফিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে‌।

তবে এ বিষয়ে বক্তব্য জানার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি অভিযুক্ত রফিকুল ইসলামকে। এছাড়াও ঘটনাটির বিষয়ে পলাশবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন নেতার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তারা এ বিষয় নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।