হাসানকে মধ্যযুগীয় কায়দায় শিকল দিয়ে বেঁধে রেখেছিল সজল

দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জে শিকল দিয়ে আটকে রাখা যুবক উদ্ধার ও আটককারীকে গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঙলা প্রতিদিন: র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাব নিয়মিত জঙ্গী, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, অস্ত্রধারী অপরাধী, মাদক, ছিনতাইকারীসহ অপহরন হওয়া ভিকটিম উদ্ধার ও অপহরনকারীকে গ্রেফতরের অভিযান চালিয়ে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত সোমবার (১৫ নভেম্বর) সন্ধ্যা হতে গতকাল মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) রাত ২ টা পর্যন্ত র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল ঢাকা জেলার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থানাধীন হিজলতলা ও শুভাঢ্যা এলাকায় অভিযান চালিয়ে অন্যায়ভাবে আটক করে রাখা ভিকটিম মোঃ হাসান (১৯) কে মধ্যযুগীয় কায়দায় শিকল দিয়ে বাধা অবস্থায় উদ্ধার করেছে। এসময় সজল (৩৫) নামের আটককারীকে গ্রেফতার করে।

এসময় তার নিকট থেকে ১টি লোহার শিকল, ৩টি তালা, ২টি চাবি ও ১টি মোবাইল ফোন জব্দ করে।

ভিকটিম মোঃ হাসান (১৯) গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ সজল (৩৫) এর পোশাক তৈরির কারখানায় দীর্ঘদিন যাবত দর্জির কাজ করত। বিগত কয়েক মাস যাবত আসামী মোঃ সজল সঠিক সময়ে বেতন পরিশোধ না করায় ভিকটিম মোঃ হাসান (১৯) উক্ত কারখানায় কাজ করতে অসম্মতি জানায়। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে আসামী মোঃ সজল গত ১৬ নভেম্বর সকালে ঢাকা জেলার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থানাধীন শুভাঢ্যা পিকার স্কুল এলাকা হতে ভিকটিম মোঃ হাসান (১৯)কে অপহরণ করে আসামী তার উল্লেখিত পোশাক তৈরির কারখানায় নিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় ভিকটিমকে শিকল দিয়ে বেঁধে আটকে রাখে।

পরে সংবাদ পেয়ে ভিকটিমের বাবা মোঃ গুড্ডু (৪৮) আসামী মোঃ সজল (৩৫) এর নিকট তার ছেলেকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করলে আসামী ভিকটিমের বাবার নিকট ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবী করে।

পরবর্তীতে ভিকটিমের বাবা মোঃ গুড্ডু (৪৮) নিরুপায় হয়ে র‌্যাব-১০ এর নিটক অভিযোগ দায়ের করেন। উক্ত অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল ১৫ নভেম্বর সন্ধ্যায় দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানাধীন হিজলতলা সাকিনস্থ সজলের শার্ট ও থ্রী পিচের কারখানায় অভিযান পরিচালনা করে মধ্যযুগীয় কায়দায় শিকল দিয়ে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ভিকটিম মোঃ হাসান (১৯)কে উদ্ধার করে এবং প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে।

র‌্যাব যাওয়ার সংবাদ পেয়ে আসামী মোঃ সজল (৩৫) ঘটনাস্থল হতে পালিয়ে যায়। পরবর্তিতে র‌্যাব তথ্য ও প্রযুক্তির মাধ্যমে গতকাল মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) রাতে সজল (৩৫)কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি পরিকল্পিত ভাবে ভিকটিম মোঃ হাসান (১৯)কে উক্ত কারখানায় অন্যায়ভাবে আটকে রেখে মারধর করে মধ্যযুগীয় কায়দায় শিকল দিয়ে বেঁধে রেখেছিল এবং ভিকটিমের মুক্তির জন্য ভিকটিমের বাবার নিকট ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবী করেছিল বলে জানা যায়।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে নিয়মিত মামলা রুজু করেছে