লালমনিরহাট সীমান্তে দুই বাংলাদেশী হত্যার প্রতিবাদ ও লাশ ফেরতের দাবীতে বিএনপি’র মানববন্ধন

এম এ মান্নান, লালমনিরহাট : বাংলাদেশ ছাড়া আর কোন দেশে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষি বাহিনীর সদস্যরা গুলি চালানোর সাহস পায় না বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

আজ বিকেলে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার গোড়ল ইউনিয়নের বলাইরহাট বাজারের মুল সড়কে লালমনিরহাট জেলা বিএনপি আয়োজিত এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু এ অভিযোগ করেন। তিনি আরোও বলেন, হত্যার প্রতিবাদ/ পতাকা বৈঠকের আহবান এমনকি লাশ ফেরত আনার ব্যাপারেও সরকার কোন পদক্ষেপ নেয়নি বলে অভিযোগ করেন ।

এসময় আগামী দিনের আন্দোলন সংগ্রামে নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান তিনি।
লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম এর সভাপতিত্বে ঘন্টাব্যাপী এ মানব বন্ধনে বক্তৃতা করেন, খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারি শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও লালমনিরহাট জেলা বিএনপির সভাপতি আসাদুল হাবিব দুলু , জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি রোকন উদ্দিন বাবুল প্রমুখ।
উল্লেখ্য গত ১২ নভেম্বর ভোরে লালমনিরহাটের গোড়ল ইউনিয়নের লোহাকুচি সীমান্তে ৯১৭ নম্বার আন্তর্জাতিক মেইন পিলার এর সাব পিলার ৫ সংলগ্ন এলাকায় কুচবিহার জেলার শিতাই থানার গুঞ্জিরচওড়া এলাকায় ভারতের অভ্যান্তরে ৯৫ বিএসএফ ব্যাটালিনের গুঞ্জিরচওড়া ক্যাম্পের সদস্যরা দুই বাংলাদেশীকে গুলি করে হত্যা করে। নিহতরা হলেন, গোড়ল ইউনিয়নের মালগাড়া গ্রামের মৃত আলতাফ মিয়ার ছেলে আসাদুজ্জামান ভাসানী ও একই এলাকার মৃত মোসলেম উদ্দিনের ছেলে ইদ্রিস আলী। পরে বিএসএফ ঘটনাস্থল থেকে নিহতদের লাশ নিয়ে যায় । এ ঘটনার ৬দিন অতিবাহিত হলেও এখনোও লাশ ফেরত দেয়নি তারা।