মোংলায় বাল্কহেড ডুবি: আরও ১ মরদেহ উদ্ধার

সংবাদদাতা, বাগেরহাট: বাগেরহাটের মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলে বাল্কহেড ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ আরও ১ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় এখনও ২ জন নিখোঁজ আছেন।

শুক্রবার দুপুরে হারবাড়িয়া থেকে নদীতে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করা মরদেহটি বাল্কহেডের কর্মী রবিউল ইসলামের (১৮)। তার বাড়ি পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি এলাকায়।

বাংলাদেশ লঞ্চ লেবার অ্যাসোসিয়েশন মংলা শাখার সহ-সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান বাবুল জানান, ঘটনার পর থেকে নিখোঁজদের পরিবার দুর্ঘটনা কবলিত এলাকায় খোঁজাখুঁজি করছে। জেলেদের কাছ থেকে একটি মরদেহ ভেসে উঠার কথা জানতে পেরে তারা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রবিউলের মরদেহ উদ্ধার করে।

তবে রবিউলের বাবা বাল্কহেড মাস্টার মহিউদ্দিন (৬০) এবং পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ার জিহাদ ওরফে জিসান এখনও নিখোঁজ।

মংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গত সোমবার এমভি ফারদিন-১ নামের কয়লাবোঝাই ওই বাল্কহেডটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় ওই বাল্কহেডের ৫ কর্মী নিখোঁজ হন। পরদিন মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কোস্টগার্ড ২ জনের মরদেহ উদ্ধার করে।