বসুন্ধরা গ্ৰুপের অর্থায়নে বগুড়ায় প্রথম দিন ১০০০ কম্বল বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্প গ্ৰুপ বসুন্ধরা গ্ৰুপের অর্থায়নে এবং কালের কণ্ঠ শুভসংঘ বগুড়া জেলা শাখার আয়োজনে সোমবার বগুড়া জিলা স্কুল মাঠ ও শাজাহানপুরে ১০০০ কম্বল বিতরণ করা হয়েছে।

কম্বল পেয়ে ৬৫ বছরের বৃদ্ধ আজহার আলী বলেন, হামি অনেক খুশি হচি বাবা কম্বল প্যায়া। দোওয়া করিচ্চি তোমাকেরে জন্যে, আল্লাহ ভালো করুক।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বগুড়ার জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সামাজিক সংগঠন শুভসংঘের পরিচালক জাকারিয়া জামান।

জেলা প্রশাসক তার বক্তব্যে বলেন, বসুন্ধরা গ্ৰুপ দেশের মানুষের বন্ধু। তারা যে কোন দূর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়ায়। করোনাকালেও তারা সারাদেশে অসহায় মানুষদের মধ্যে ব্যাপক সহযোগিতা করেছে। এটা নি:সন্দেহে একটি উজ্জল দৃষ্টান্ত। বসুন্ধরার মতো প্রতিটি শিল্প গ্ৰুপ দেশের অসহায় মানুষকে সহযোগিতা করার জন্য এগিয়ে এলে মানবতার জন্য সেটি উদাহরণ সৃষ্টি হবে। কালের কন্ঠ শুভসংঘ’র কার্যক্রমের প্রশংসা করে তিনি বলেন, সারা বছরই সামাজিক এই সংগঠনটি অসহায় মানুষদের পাশে থাকছে। যতোটুকু সাধ্য মেলে তা নিয়েই সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে।

৭২ বছরের আমির আলী বলেন, বেজায় শীত পরিছে বাবা। কম্বলডা পানু। হামি জানভরে দোওয়া করমু বসুন্ধরার মালিকের জন্নি। কম্বল পেয়ে ৯ বছরের ছোট মনির তার খুশির ভাব প্রকাশ করে জানায়, হামি আব্বাক কচ্চুনু একটা নতুন কম্বল আনব্যার। হামার পাপ ইস্কা চলায়। প্রতিদিন আনবার চ্যায়াও আনে না। আজ হামি কম্বল পাছি। হামি খুব খুশি।

এদিকে বিকেলে শাজাহানপুর মাঝিড়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা শুভসংঘের আয়োজনে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাবেক কাউন্সিলর খোরশেদ আলম। উপস্থিত ছিলেন শুভসংঘের প্রধান উপদেষ্টা জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আসাদুর রহমান দুলু, উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা আশিক খান, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দিলরুবা খাতুন, কালের কন্ঠের প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান জিয়া, আতিকুল ইসলাম আতিক প্রমূখ।