ঠাকুরগাঁওয়ে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি ও নবজাতকের মৃত্যু

সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁওয়ে একটি বেসরকারি ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় নাসিমা খাতুন নামে (৩০) এক প্রসূতি ও নবজাতক শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। স্বজনদের দাবি ভুল চিকিৎসার কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার একতা নার্সিং হোম নামে একটি ক্লিনিকে এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

মৃতের স্বজনদের অভিযোগ, মঙ্গলবার বিকেল ৩ টায় ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার দেবীপুর ইউনিয়নের খইলসাকুরি গ্রামের সন্তান সম্ভবা নাসিমা খাতুন কে ওই ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। রোগীর স্বজনদের অভিযোগ, এরপর কোন প্রকার পরীক্ষা-নিরিক্ষা ছাড়াই তার সিজারিয়ান অপারেশন করা হয়। সিজারের পরে শিশু সন্তানটি মারা যায় এবং রোগীর অবস্থার অবনতি হলে ডাক্তার সেখান থেকে পালিয়ে যায়। পরে অনেক খোঁজা খোঁজি করা হলে ডাক্তার পুণরায় এসে রোগীকে রংপুরে রেফার্ড করে। এরপর ক্লিনিক কতৃপক্ষ একটি এম্বুলেন্স এনে রোগীকে সেখানে রেখে পালিয়ে যায়।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ডা. জাহাঙ্গী বলেন, বাচ্চা পেটেই মৃত ছিল এবং রোগীর বিপি পাওয়া যাচ্ছিল না, এমন অবস্থায় আইসিইউ প্রয়োজন হতে পাড়ে ভেবে রোগীকে দ্রুত রংপুর মেডিক্যাল কলেজে রেফার্ড করি। কিন্তু তার স্বজনরা তাকে নিয়ে যেতে রাজি হয় না। দ্রুত রংপুরে নিয়ে গেলে হয়তো রোগীটিকে বাচানো যেত।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ তানভিরুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।