বাংলাদেশ ও জাপানের সম্পর্ক ঐতিহাসিক : যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেছেন, বাংলাদেশ ও জাপানের সম্পর্ক অত্যন্ত বন্ধুত্বপূর্ণ এবং ঐতিহাসিক। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের সংকটময় দিনগুলোতে জাপান সরকার ও তার জনগণ বাংলাদেশের প্রতি আন্তরিক সমর্থন ও সহানুভূতি প্রকাশ করেছে।

জাপানের সাথে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক সম্পর্কের ভিত্তিটি বঙ্গবন্ধু রচনা করেছিলেন মর্মে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি আমাদের মহান ও অবিসংবাদিত নেতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনালী স্মৃতি স্মরণ করতে চাই, যিনি জাপান সরকারের বিশেষ আমন্ত্রণে ১৯৭৩ সালে জাপানে সরকারি সফরে গিয়েছিলেন। উদীয়মান সূর্যের দেশে পৌঁছালে তাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয় এবং ইম্পেরিয়াল প্যালেসে জাপানের মহামহিম সম্রাট তাকে উষ্ণভাবে অভ্যর্থনা জানায়।

জাপানের সে সময়ের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বঙ্গবন্ধুর একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হয়েছিল তখন থেকেই বাংলাদেশ জাপানের সঙ্গে শিক্ষা, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, অবকাঠামো, স্বাস্থ্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ইত্যাদি ক্ষেত্রে অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে চলেছে। তিনি আজ জাপান দূতাবাস ও জাইকা বাংলাদেশের যৌথ আয়োজনে বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপনের অংশ হিসেবে জাপানের পেশাদার লিগ দল ‘ইয়োমিউরি জায়ান্টসের’ সাথে বাংলাদেশ জাতীয় বেসবল দলের এক অনলাইন প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যেকালে এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী জাপানের সবচেয়ে জনপ্রিয় পেশাদার বেসবল দল ইয়োমিউরি জায়ান্টস যারা বাংলাদেশ জাতীয় বেসবল দলকে অনলাইনে প্রশিক্ষণ দিতে যাচ্ছে তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন । তিনি বলেন আমি বিশ্বাস করি, এই কর্মসূচী ক্রীড়া ক্ষেত্রে জাপান ও বাংলাদেশের মধ্যে সহযোগিতা জোরদার করার পথ তৈরি করবে। জাপান অতীতে প্রশিক্ষিত প্রশিক্ষক এবং ক্রীড়া উপকরণ প্রদান করে সর্বদা আমাদের পাশে থেকেছে। আশা করি, ভবিষ্যতেও এ ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

এ সময়ে প্রতিমন্ত্রী টোকিও অলিম্পিক গেমসে বাংলাদেশ দলকে সার্বিক সহযোগিতার জন্যে জাপান সরকার, অলিম্পিক কমিটি ও জাপানের অতিথিপরায়ন জনগণের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রদান করেন জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি এবং স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন জাইকা বাংলাদেশের চিফ রিপ্রেজেন্টেটিভ ইউহো হায়াকাওয়া।