সংবাদদাতা, কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়া শহরের কোর্টপাড়া এলাকায় স্ত্রীতে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে অটোচালকের বিরুদ্ধে।

বুধবার রাত পৌনে ১০টার দিকে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে।

নিহত রত্না খাতুন (৩৫) মিরপুর উপজেলার চারমাইল বিভাগ তাঁতিবন্দ গ্রামের আজিম মৃধার মেয়ে। অভিযুক্ত স্বামীর নাম রনি হোসেন (৪২)। ১৮ বছর আগে পারিবারিকভাবে তাদের বিয়ে হয়।

ঘটনার পর রনি হোসেন ও তার মা লিলি খাতুনকে (৬০) আটক করেছে পুলিশ।

নিহতের বড় বোন স্বপ্না খাতুনের অভিযোগ, ‘রনি বেশ কিছুদিন আগে গোপনে এলাকার এক নারীকে বিয়ে করেন। বিষয়টি গত ৭/৮ দিন পূর্বে জানাজানি হওয়ায় রত্নার সঙ্গে রনির কলহ ঝগড়া চলছিল। দুই দিন আগে রনি তার দ্বিতীয় স্ত্রীকে বাড়িতে তুলতে চাইলে রত্না আপত্তি করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রনি রত্নাকে মারধরও করেছে। খবর পেয়ে আমার মা বুধবার দুপুরে রত্নার বাড়িতে যান।

এদিন সন্ধ্যার দিকে কৌশলে রনি রত্নাকে শহরের কোর্টপাড়ায় যে বড়িতে রনির মা গৃহকর্মীর কাজ করেন সেখানে নিয়ে যান। ওখানেই রনির মা লিলি খাতুনের সামনে রত্নাকে হাতুড়ি দিয়ে মাথায় আঘাত করে এবং গলাটিপে খুন করেছে।’

নিহত রত্নার ১৮ বছরের সংসার জীবনে ১৪ ও ১১ বছরের দুই মেয়ে রয়েছে বলে জানান স্বপ্না খাতুন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কুষ্টিয়া মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক সাব্বিরুল আলম জানান, ‘বুধবার রাতে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করার অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহতের স্বামী রনি ও শাশুড়ি লিলি খাতুনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহতের বাবা আজিম মৃধা বাদী হয়ে রনি ও রনির মা লিলি খাতুনের নামোল্লেখসহ এজাহার দিয়েছে, মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here