নওগাঁ প্রতিনিধি: ফেসবুকে কোরআন অবমাননা ও মহানবীকে নিয়ে কটুক্তি করায় নওগাঁর রাণীনগর মহিলা কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আব্দুর রউফ মিঞাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় জেলার সদর উপজেলার কাঁঠালতলী এলাকায় নিজ বাস ভবন থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

কলেজ সূত্রে জানা যায়, গত তিনদিন আগে রাণীনগর মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক (বাংলা) আব্দুর রউফ মিঞা তার নিজের ফেসবুক আইডিতে কবিতা লেখার মাধ্যামে কোরআন অবমাননা ও রাসুল (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তি করে পোস্ট করেন।

এরপর বিষয়টি জানাজানি হয়। বিষয়টি নিয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষকে ওই সহকারী অধ্যাপকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বার বার বলা হয়। তারপরে কলেজ কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় বৃহস্পতিবার জোহরের নামাজের পর থেকে স্থানীয় আলেম-ওলামা সহ তৌহিদী জনতা বিচারের দাবিতে কলেজে অবস্থান নেয়। এরপর বিকেল ৩ টার দিকে কলেজের ওই সহকারী অধ্যাপককে শোকজ করা হয়। তারপর স্থানীয় আলেম-ওলামা সহ তৌহিদী জনতা কলেজ প্রাঙ্গন ত্যাগ করেন। সন্ধ্যায় তাকে তার নিজ বাসভবন থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

রাণীনগর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মিরাজুল ইসলাম বলেন, কোরআন অবমাননা ও রাসুল (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তি করায় কলেজের সহকারী অধ্যাপক (বাংলা) আব্দুর রউফ মিঞাকে বৃহস্পতিবার শোকজ করা হয়। শোকজের কপি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর তিন কার্যদিবসের মধ্যে তাকে শোকজের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

শোকজের বিষয়টি নিশ্চিত করে রাণীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মহিলা কলেজের সভাপতি শাহাদাত হুসেইন বলেন, ঘটনাটি জানাজানি হলে অধ্যক্ষ তাকে শোকজ করেছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।

রাণীনগর মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক (বাংলা) আব্দুর রউফ মিঞা জানান, আমি কবিতা লেখেছি। কাউকে নিয়ে কটুক্তি করিনি। আর শোকজের কোন কপি আমি পাইনি এবং জানি না বলেও জানান তিনি।

রাণীনগর থানার ওসি (তদন্ত) সেলিম রেজা সহকারী অধ্যাপক আব্দুর রউফ মিঞার গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, বেশ কয়েক বছর আগে রাণীনগর মহিলা কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আব্দুর রউফ মিঞা স্বপরিবারে ইসলাম ধর্ম ত্যাগ করে খ্রিস্টীয় ধর্ম গ্রহণ করেছেন। এরপর থেকেই তিনি ইসলামকে অবমাননা করে বিভিন্ন কবিতা লিখে আসছিলেন বলে জানা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here