বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:৫৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি এবং বৈষ্যম্য কমিয়ে মাদকমুক্ত ব্যক্তিদের অনুপ্রাণিত করতে হবে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাথে সাউথইস্ট ব্যাংকের চুক্তি স্বাক্ষর গণতন্ত্র, অগ্রগতি, বিশ্ব নারী জাগরণের প্রতীক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা : তথ্যমন্ত্রী ইসলামী ব্যাংকের শরী‘আহ সুপারভাইজরি কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ব্র্যাক ব্যাংকের ৮০০টি এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট চালুর মাইলফলক অর্জন মানসম্মত সুশিক্ষাই টেকসই উন্নয়নের হাতিয়ার পাটকাঠি আস্ত রেখে পাটের আঁশ ছাড়ানোর যন্ত্র আবিষ্কার করলো বারি’র বিজ্ঞানীরা ঈশ্বরদী ইপিজেডে চীনা কোম্পানির ১২০ লাখ মার্কিন ডলার বিনিয়োগ হৃদরোগ ঝুঁকি মোকাবেলায় কমিউনিটি ক্লিনিক পর্যায়ে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে হবে ‘‌পাটখাতের রপ্তানী বাণিজ্য সম্প্রসারণে অংশীজনদের সার্বিক সহযোগিতা করা হবে’ ভাষাসৈনিক সাংবাদিক রণেশ মৈত্রের মৃত্যুতে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর শোক করতোয়ায় নৌ-দুর্ঘটনা: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৬

১৫ই আগস্টে শুধু বঙ্গবন্ধুকেই হত্যা করেনি, হত্যা করেছিল বাঙালি জাতির বিবেককে : খসরু চৌধুরী

নারগিস পারভীন : স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে প্রতি বছরের মতো এবারও যথাযোগ্য মর্যাদায় নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে পালন করবে ঢাকা -১৮ আসনের আ’লীগ ও তাঁর সহযোগী সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ।

এছাড়াও ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে আগস্ট মাসকে শোকের মাস হিসেবে ঘোষণা হবার পর থেকেই ১৫ই আগস্টে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারসহ নিহত সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এই শোক দিবসটি পালন করেন দেশের আনাচে কানাচে আওয়ামী পরিবারের নেতৃবৃন্দ। বাঙালির ইতিহাসে শোকাবহ মাস আগস্ট, এ মাসে স্বাধীনতা বিরোধী, ক্ষমতা লোভী কিছু সেনা সদস্য শুধু বঙ্গবন্ধুকেই হত্যা করেনি হত্যা করেছিল জাতির বিবেক, গণতন্ত্রের একটি দেশকে, হত্যা করেছিল বাংলাদেশ গৌরবান্বিত অর্জনকে, জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর কিছু স্মৃতি স্মরন নিয়ে আলোচনা কালে একান্ত সাক্ষাৎ কারে গণমাধ্যমে এসব কথা বলেন, ঢাকা মহানগর উত্তর আ’ লীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ খসরু চৌধুরী।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন গোটা বিশ্বের কাছে ছিল একজন জনপ্রিয় নেতা। স্বাধীন দেশে কোনও বাঙালি বঙ্গবন্ধুর জন্য হুমকি হতে পারে না এমন দৃঢ়বিশ্বাসে তিনি গণভবনের পরিবর্তে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরের নিজ বাসভবনে থাকতেন, এবং যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ গড়ার মহাকার্য পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু তা বাস্তবায়ন করে যেতে পারেনি একদল বিশ্বাসঘাতক পৈশাচিক হত্যা কান্ডের মাধ্যমে।

৭৫ এর সেই কালরাতে ইতিহাসের নিষ্ঠুরতম হত্যাকান্ডের শিকার হন, বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিনী মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, বঙ্গবন্ধুর তিন ছেলে- বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল, বীর মুক্তিযোদ্ধা লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল, শিশু পুত্র শেখ রাসেল, পুত্রবধু সুলতানা কামাল, রোজী কামাল; ভাই শেখ আবু নাসের, ভগ্নিপতি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত, ভাগনে শেখ ফজলুল হক মণি ও তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী বেগম আরজু মণি,বঙ্গবন্ধুর জীবন বাঁচাতে ছুটে আসা কর্নেল জামিলউদ্দীন সহ অনেকেই। ওই সময় দেশে না থাকায় প্রাণে বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানা। আগস্টের এই হত্যা কান্ডে গোটা বিশ্বে নেমে আসে শোকের ছায়া এবং ছড়িয়ে পরে প্রচন্ড ঘৃণার ঝড়।

বঙ্গবন্ধুর হত্যার খবরে নোবেল জয়ী পশ্চিম জার্মানি নেতা উইলি ব্রানডিট বলেন, মুজিবকে হত্যার পর আর বঙালিদের বিশ্বাস করা যায় না। যে বাঙালি শেখ মুজিবকে হত্যা করতে পারে তাঁরা যে কোন জঘন্য কাজ করতে পারে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ১৯৭৫ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট খন্দকার মোশতাক আহমদ বিচারের হাত থেকে খুনিদের রক্ষা করতে কুখ্যাত ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স জারি করেন এবং পরে ১৯৭৯ সালে জিয়াউর রহমান ইনডেমনিটিকে আইন হিসেবে অনুমোদন দিলেও আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার ক্ষমতায় আসার আগে রাষ্ট্রীয়ভাবে চরম অবহেলিত থাকতো জাতির জনককে হারানোর দিনটি।

পরবর্তী সময়ে জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মাটিতে এসে ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর রাষ্ট্রীয়ভাবে প্রথম শোক দিবস পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হলেও ২০০১ সালে বিএনপির নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট ক্ষমতায় এসে সে সিদ্ধান্ত বাতিল করে। তবে ফখরুদ্দীন আহমদের নেতৃত্বাধীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতায় এসে আবার রাষ্ট্রীয়ভাবে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনের সিদ্ধান্ত নেন।

জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে, দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ২০১১ সালের জানুয়ারিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারবর্গের হত্যাকারী পাঁচ আত্মস্বীকৃত খুনির ফাঁসির দণ্ডাদেশ কার্যকর হয়েছে এবং বাকী খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে বিচার কার্য সম্পূর্ণ করার দাবি সকল মুজিব সেনাদের।

যথাযোগ্য মর্যাদা, শ্রদ্ধা, ভালোবাসা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশেের মধ্য দিয়ে ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দেশের সকল মসজিদ, মন্দির, গির্জা ও প্যাগোডায় বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনার আয়োজন করেন আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী, ভ্রাতৃপ্রতীম বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক- রাজনৈতিক সংগঠন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 www.banglapratidin24.com

This will close in 1 seconds