বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি এবং বৈষ্যম্য কমিয়ে মাদকমুক্ত ব্যক্তিদের অনুপ্রাণিত করতে হবে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাথে সাউথইস্ট ব্যাংকের চুক্তি স্বাক্ষর গণতন্ত্র, অগ্রগতি, বিশ্ব নারী জাগরণের প্রতীক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা : তথ্যমন্ত্রী ইসলামী ব্যাংকের শরী‘আহ সুপারভাইজরি কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ব্র্যাক ব্যাংকের ৮০০টি এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট চালুর মাইলফলক অর্জন মানসম্মত সুশিক্ষাই টেকসই উন্নয়নের হাতিয়ার পাটকাঠি আস্ত রেখে পাটের আঁশ ছাড়ানোর যন্ত্র আবিষ্কার করলো বারি’র বিজ্ঞানীরা ঈশ্বরদী ইপিজেডে চীনা কোম্পানির ১২০ লাখ মার্কিন ডলার বিনিয়োগ হৃদরোগ ঝুঁকি মোকাবেলায় কমিউনিটি ক্লিনিক পর্যায়ে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে হবে ‘‌পাটখাতের রপ্তানী বাণিজ্য সম্প্রসারণে অংশীজনদের সার্বিক সহযোগিতা করা হবে’ ভাষাসৈনিক সাংবাদিক রণেশ মৈত্রের মৃত্যুতে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর শোক করতোয়ায় নৌ-দুর্ঘটনা: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৬

৮ মাসে ৩ লক্ষ নাগরিক ১৬১২২ নম্বরে থেকে ফোনযোগে ভূমিসেবা গ্রহণ

ভূমি জরিপের খসড়ার উপর আপত্তি ১৬১২২ নম্বরে ফোনে গ্রহণের ব্যবস্থা শীগগিরই

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঙলা প্রতিদিন : চলতি বছরের প্রথম ৮ মাসে প্রায় ৩ লক্ষ মানুষ ১৬১২২ নম্বরে ফোন করে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম www.facebook.com/land.gov.bd-এ কমেন্ট কিংবা মেসেজ (বার্তা) করে ভূমি বিষয়ক সেবা গ্রহণ করেছেন। জাতীয় ভূমিসেবা কলসেন্টার সেবাটি ‘নাগরিক ভূমিসেবা ২৪/৭’ নামে পরিচিত।

এছাড়া, ‘নাগরিক ভূমিসেবা ২৪/৭’-এর হেল্পলাইন ১৬১২২ থেকে গত ৮ মাসে মোট ৭ লক্ষ ৫০ হাজার বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ কল নিষ্পত্তি করা হয়েছে। বিদেশ থেকে এর লং-কোড 880 9612-316122 এ প্রাপ্ত কল নিষ্পত্তি সংখ্যা প্রায় ৫ হাজার ৪০০। সেবা প্রার্থীদের পুনরায় ফোন করে ফলো-আপ করা হয়েছে প্রায় ১০ হাজার কলের মাধ্যমে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘ভূমিসেবা Land Service’ (www.facebook.com/land.gov.bd) পেজ থেকে প্রায় ১২ হাজার মেসেজ এবং কমেন্টের জবাব দেওয়া হয়েছে। ভূমি মন্ত্রণালয়ের এক পর্যালোচনায় উপর্যুক্ত তথ্যাদি উঠে আসে।

ভূমিসেবা হেল্পলাইন ১৬১২২ সহ অন্যান্য ডিজিটাল সেবার কারণে ভূমি অফিসে না গিয়েই ভূমি সেবা গ্রহণ করতে পারছেন দেশের নাগরিক। এতে মানুষের অর্থ-খরচ ও ভোগান্তি অনেকাংশে লাঘব পেয়েছে। অসাধু সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী কর্তৃক ক্ষমতার অপব্যবহার এবং দুর্নীতির সুযোগ হ্রাস পেয়েছে বহুলাংশে। ‘ভূমি অফিসে না এসেই নাগরিক যেন ভূমি সেবা পান এবং একান্ত জরুরী প্রয়োজন ছাড়া যেন কাউকে ভূমি অফিসে আসতে না হয়’ – বর্তমান সরকারের ভূমি ব্যবস্থাপনা ডিজিটালাইজেশনের অন্যতম এই উদেশ্য বাস্তবায়নে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরীর নেতৃত্বে ভূমি মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে।

‘নাগরিক ভূমিসেবা ২৪/৭’ কলসেন্টারটি ভূমি মন্ত্রণালয়ের সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে পরিচালিত হচ্ছে। ভূমি মন্ত্রণালয় এবং এর আওতাভুক্ত দপ্তর/সংস্থায় কর্মরত ভূমি আইন, ব্যবস্থাপনা, ও জরিপ বিষয়ে দক্ষ ও অভিজ্ঞ কর্মকর্তাগণ ফোন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রাপ্ত অনুসন্ধানের উত্তর, পরামর্শ, সম্ভাব্য সমাধান প্রস্তুত ও সরবরাহের দায়িত্বে রয়েছেন। কলসেন্টারটির অপারেটর ও কারিগরি পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছে আন্তর্জাতিক কলসেন্টার পরিচালনায় অভিজ্ঞ একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

ভূমি মালিকদের কাছে ‘নাগরিক ভূমিসেবা ২৪/৭’র জনপ্রিয় সেবাসমূহের মধ্যে রয়েছে: ঘরে বসেই ডাকযোগে খতিয়ান (পর্চা) ও জমির ম্যাপ প্রাপ্তি, যেকোনো স্থান থেকে খতিয়ান ও নামজারি ফি এবং ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ, নামজারি আবেদন করা, ভূমি আইন ও বিধিবিধান সংক্রান্ত জিজ্ঞাস্যের জবাব এবং বিবিধ অভিযোগ গ্রহণ ইত্যাদি।

এছাড়া, গত ২৫ আগস্ট ২০২২ তারিখে ভূমি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ভূমি সচিব মো. মোস্তাফিজুর রহমান পিএএ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় ভূমিসেবা কলসেন্টার ‘নাগরিক ভূমিসেবা ২৪/৭’ সম্পর্কিত এক সভায় – ভূমি জরিপের খসড়া প্রকাশের পর ৩০ দিনের মধ্যে বিধিমালার ৩০ ধারার আপিল যেন ভূমি অফিসে না এসেই নাগরিক ফোনযোগে করতে পারেন – সেই ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণে ভূমি মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের তিনি (ভূমি সচিব) নির্দেশ দেন। এসময় তিনি জানান পর্যায়ক্রমে ভূমিসেবা কলসেন্টারটিতে আরও সেবা বৃদ্ধি করা সহ নিয়মিত সেবা ফলো-আপ গ্রহণের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এছাড়াও ‘নাগরিক ভূমিসেবা ২৪/৭’-তে ভূমি অধিগ্রহণ, নামজারি, ভূমি উন্নয়ন কর, খাস জমি বন্দোবস্ত, অর্পিত সম্পত্তি, পরিত্যক্ত সম্পত্তি, ভূমি জরিপ ও রেকর্ডরুম, জল মহাল, বালু মহাল, চা বাগান, হাট বাজার ব্যবস্থাপনা সহ আরও বিভিন্ন ধরণের ভূমি সংক্রান্ত তথ্য অনুসন্ধান করা হয় নিয়মিত।

প্রসঙ্গত, গত ০৫ জানুয়ারি ২০২২ তারিখে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী অভিযোগ গ্রহণের পাশাপাশি সকল ধরণের ভূমিসেবা প্রদানের উদ্দেশ্যে নিয়ে ‘নাগরিক ভূমিসেবা ২৪/৭’ নামে ফুলসার্ভিস কল সেন্টারটি উদ্বোধন করেন। কল সেন্টারটি ৩০ জন অপারেটর নিয়ে মিরপুরে অস্থায়ী কার্যালয়ে কাজ শুরু করে। অপারেটর সংখ্যা বৃদ্ধি করে কলসেন্টারটি তেজগাঁও ভূমি ভবনে স্থায়ী কার্যালয়ে স্থানান্তর করা হবে।

এর আগে ২০১৯ সালের ১০ অক্টোবর ভূমিমন্ত্রী ছোটো পরিসরে ‘ভূমিসেবা হটলাইন ১৬১২২’ উদ্বোধন করেন। ৫ জন অপারেটর নিয়ে কেবল বাংলাদেশের ভেতরে থেকে অভিযোগ গ্রহণ ও অনুসন্ধানের জবাব দানের উদ্দেশ্যে ১৬১২২ হটলাইন সাচিবালয়ে ভূমি মন্ত্রণালয়ের কার্যালয়ের একটি ছোটো কক্ষে যাত্রা শুরু করেছিল। ২০১৯ এর অক্টোবর উদ্বোধনের পর থেকে ২০২১ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ২ বছরে প্রায় ১ লক্ষ কল নিষ্পত্তি করেছিল ভূমিসেবা হটলাইন ১৬১২২।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020 www.banglapratidin24.com

This will close in 1 seconds