300X70
মঙ্গলবার , ১৬ এপ্রিল ২০২৪ | ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দূর্নীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আনন্দ ঘর
  4. আনন্দ ভ্রমন
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত খবর
  7. উন্নয়নে বাংলাদেশ
  8. এছাড়াও
  9. কবি-সাহিত্য
  10. কৃষিজীব বৈচিত্র
  11. ক্যাম্পাস
  12. খবর
  13. খুলনা
  14. খেলা
  15. চট্টগ্রাম

মহেশপুরে নারীদের বস্তা ধরে টানা টানিকারী সেই রনির বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

প্রতিবেদক
বাঙলা প্রতিদিন২৪.কম
এপ্রিল ১৬, ২০২৪ ৯:৪৯ পূর্বাহ্ণ

মহেশপুর(ঝিনাইদহ)প্রতিনিধি : ভিজিএফের চাল কম দেওয়ার মিথ্যা অভিযোগ তুলে উপকার ভোগীদের হয়রানি করার সময় এলাকাবাসী রনি নামের এক ভুয়া পরিচয় নামধারী সংবাদকর্মীকে লাঞ্চিত করেন। এ সময় স্থানীয় উপকার ভোগী নারী-পুরুষেরা ফুসে উঠলে ভুয়া পরিচয় নামধারী সংবাদকর্মী রনি এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।
এ ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকালে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের পাশে। গত রোববার বিকালে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসী ও ভিজিএফের চাল পাওয়া কয়েক শো’ উপকার ভোগীরা বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদ চত্তরে ভিজিএফের চাল পাওয়া উপকার ভোগীরা তাদের হয়রানি করার কারনে এক মানববন্ধন করেন। মানববন্ধনে ভিজিএফের চাল পাওয়া উপকার ভোগীরা তাদের হয়রানি করার কারনে ভুয়া পরিচয় নামধারী সংবাদকর্মী রনি ও তার পৃষ্ট পোশকের বিচার দাবি করেন।

মানববন্ধনে আসা বাঁশবাড়ীয়া গ্রামের জাহিদা বেগম,একই এলাকার ইশারুন নেছা জানান, আমরা অসহায় মানুষ। আমরা যখন ভিজিএফের ১০ কেজি করে দেওয়া চাল নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ ছেড়ে বাড়ীর দিকে চলে যাচ্ছি তখন রনি নামের এক যুবক আমাদের চাউলের বস্তা ধরে টানা টানি শুরু করে। এ সময় করার সময় এলাকার কয়েকজন তাকে
টেনে হেচড়ে নিয়ে যায়।

ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য (ইউপি সদস্য) নাসির উদ্দীন, আজিজুর রহমান,শহীদুল ইসলাম জানান, আমরা কোন ভিজিএফের চাল পাওয়া উপকার ভোগীদের চাউল কম দেয়নি। অথচ রনি নামের একজন উপকার ভোগী নারীদের চাউলের বস্তা নিয়ে টানা টানি করার সময় পরিষদের বাইরে কয়েকজন তাকে রাঞ্চিত করেছে বলে শুনেছি। উপকার ভোগী নারীদের টানা হেচড়া করার কারনে এলাকাবাসী ইউনিয়ন পরিষদ চত্তরে রনির বিচার দাবি করে মানববন্ধর করেছে।

বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা জিন্টু জানান, ভিজিএফের চাল পাওয়া উপকার ভোগী অসহায় নারীরা যখন চাউল নিয়ে যায় রাস্তার মধ্যে রনি তাদের চাউলের বস্তা নিয়ে টানাটানি করার সময় এলাকার কিছু মানুষ তাকে টানা হেচড়া করেছে বলে আমি শুনেছি। নারীদের চাউলের বস্তা ধরে টানা টানির কারনে এলাকার নারী-পুরুষেরা আজ আমার ইউনিয়ন পরিষদ চত্তরে রনির বিচার দাবি করে মানববন্ধন করেছে।

মহেশপুরে বর্ণাঢ্য আয়োজনে পহেলা বৈশাখ উদর্যাপন
ঝিনাইদহের মহেশপুরে বর্ণাঢ্য আয়োজনে পহেলা বৈশাখ উদযাপন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে মহেশপুর উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সকালে মহেশপুর সরকারী পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বকুল তলা থেকে একটি বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বকুল তলায় গিয়ে শেষ হয়।
পরে বকুলতলায় আলোচনা সভাসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গল শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ ৩ আসনের সংসদ সদস্য সালাউদ্দীন মিয়াজী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অনুপ কুমার দাস,উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ময়জদ্দীন হামীদ,ভাইস চেয়ারম্যান আজিজুল হক আজা,উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাজ্জাদুল ইসলাম সাজ্জাদ,সাধারণ সম্পাদক মীর সুলতানুজ্জামান লিটন, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুর রহমান, উপজেলা প্রকৌশলী সৈয়দ শারিয়ার আকাশ, মহেশপুর পৌর মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মোজাফর হোসেনসহ উপজেলার কর্মরত সকল কর্মকর্তা কর্মচারী, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ নেয়। আদালতের স্থগিত আদেশ অমান্য করে পুড়োপাড়ার পশু হাটের দখল নিলেন উপজেলা

প্রশাসন, পশুহাটের টোল ঘরে কারা?
পহেলা বৈশাখের দিনেই আদালতের স্থগিত আদেশ অমান্য করে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার বহুল আলোচিত পুড়োপাড়ার পশু হাটের দখল নিলেন উপজেলা প্রশাসন। জিপির আদেশের দোহায় দিয়ে পশু হাটটি দখলে নেয় উপজেলা প্রশাসন। পশুহাটটি দখলে নিয়ে উপজেলা প্রশাসন ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাদের দিয়ে খাশ আদায় শুরু করার কথা থাকলেও মুলত পশুহাটের টোল ঘরে (খাজনা আদায়ের ঘর) গিয়ে দেখা যায় মান্দাবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুর রহমানের সাঙ্গ-পাঙ্গরা পশু হাটের ক্রেতা-বিক্রেতাদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে পশু হাটের রশিদ হাতে ধরিয়ে দিচ্ছেন।

মান্দাবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুর রহান জানান, র্দীঘ দিন আদালতের মামলার দোহায় দিয়ে একজন পশু হাটটি করে কম্মে আসছিলো। এখন উপজেলা প্রশাসন খাশ আদায় করছে, এর সাথে এলাকার কয়েকজন রয়েছে। পুড়োপাড়ার পশু হাটের দখলকারী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল কাদের জানান, পশুহাটের উপর আদালতের স্থগিত আদেশ রয়েছে। তার পরও উপজেলা প্রশাসন জিপির আদেশের দোহায় দিয়ে পশু হাটটি দখলে নিয়েছে। তবে আমাকে এখনও পর্যন্ত জিপির দেওয়া আদেশের কপি আমাকে দেওয়া হয়নি।

তিনি আরো জানান, উপজেলা প্রশাসন ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাদের দিয়ে খাশ আদায় শুরু করার কথা থাকলেও
মুলত পশুহাটের টোল (খাজনা) আদায় করছে কারা? উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অনুপ কুমার দাস জানান, আদালতের একটি আদেশ আছে কথাটি ঠিক। তবে
জিপির অনুমতি নিয়েই আমি ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাদের দিয়ে খাশ আদায় শুরু করেছি।

সর্বশেষ - খবর

আপনার জন্য নির্বাচিত
ব্রেকিং নিউজ :