300X70
মঙ্গলবার , ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ ও দূর্নীতি
  2. আইন ও আদালত
  3. আনন্দ ঘর
  4. আনন্দ ভ্রমন
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত খবর
  7. উন্নয়নে বাংলাদেশ
  8. এছাড়াও
  9. কবি-সাহিত্য
  10. কৃষিজীব বৈচিত্র
  11. ক্যাম্পাস
  12. খবর
  13. খুলনা
  14. খেলা
  15. চট্টগ্রাম

শেখ হাসিনাকে দ.আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট, জর্জিয়ার প্রধানমন্ত্রী এবং ব্রিটিশ মন্ত্রিপরিষদ মন্ত্রীর অভিনন্দন

প্রতিবেদক
বাঙলা প্রতিদিন২৪.কম
ফেব্রুয়ারি ৬, ২০২৪ ৪:০৯ অপরাহ্ণ

কূটনৈতিক প্রতিবেদক : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে টানা চতুর্থবার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ও জর্জিয়া।

এছাড়া বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পুনরায় নির্বাচিত হওয়ায় শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ব্রিটিশ মন্ত্রিপরিষদ মন্ত্রী ও কনজারভেটিভ পার্টির চেয়ারম্যান রিচার্ড হোল্ডেন এমপি।

ভারতের (বাণিজ্য ও বিনিয়োগ) বিষয়ে হাউস অব লর্ডসে অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপের (এপিপিজি) প্রেসিডেন্ট ব্যারনেস স্যান্ডি ভার্মা এবং যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীমের সঙ্গে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন তিনি।

এর আগে ভারত, রাশিয়া, চীন, ভুটান, ফিলিপাইন, সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, পাকিস্তানসহ বিভিন্ন দেশ প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানায়।
শেখ হাসিনার কাছে পাঠানো এক অভিনন্দন বার্তায় দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট মাতামেলা সিরিল রামাফোসা লিখেছেন, ‘বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পুনরায় নির্বাচিত হওয়ায় দক্ষিণ আফ্রিকার সরকার ও জনগণের পক্ষ থেকে আপনাকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানানোর অনুমতি দিন আমাকে।’

তিনি উল্লেখ করেন, দক্ষিণ আফ্রিকা বাংলাদেশের সঙ্গে সংহতি, বন্ধুত্ব ও পারস্পরিক বোঝাপড়ার ওপর ভিত্তি করে শক্তিশালী সম্পর্ককে বিশেষভাবে গুরুত্ব দেয়।

মাতামেলা সিরিল রামাফোসা বলেন, ‘কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার পর থেকে আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক শক্তিশালী করতে আমি উৎসাহিত হয়েছি। গত আগস্টে ব্রিকস-আফ্রিকা আউটরিচ এবং ব্রিকস প্লাস ডায়ালগে আপনার উপস্থিতির কারণে এটি আরও মজবুত হয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা দুদেশের মধ্যে পারস্পরিক সুবিধাজনক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের সম্প্রসারণে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’

এদিকে জর্জিয়ার প্রধানমন্ত্রী ইরাকলি গারিবাশভিলি শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে এক শুভেচ্ছা বার্তায় লিখেছেন, ‘বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পুনর্র্নিবাচিত হওয়া আপনাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানাতে দিন। জর্জিয়া সরকার এবং আমার নিজের পক্ষ থেকে আপনাকে অভিনন্দন। আপনার গুরুত্বপূর্ণ দাত্ব পালনে সাফল্য কামনা করছি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের দুই দেশ পারস্পরিক বোঝাপড়া ও সম্মানের ভিত্তিতে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলেছে। দুই দেশের সহযোগিতামূলক প্রচেষ্টার মাধ্যমে বর্তমান সম্পর্ক আরও জোরদার হতে থাকবে।’

শেখ হা‌সিনা‌কে ব্রি‌টিশ মন্ত্রীর অভিনন্দন
বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পুনরায় নির্বাচিত হওয়ায় শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ব্রিটিশ মন্ত্রিপরিষদ মন্ত্রী ও কনজারভেটিভ পার্টির চেয়ারম্যান রিচার্ড হোল্ডেন এমপি। ভারতের (বাণিজ্য ও বিনিয়োগ) বিষয়ে হাউস অব লর্ডসে অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপের (এপিপিজি) প্রেসিডেন্ট ব্যারনেস স্যান্ডি ভার্মা এবং যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীমের সঙ্গে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন তিনি।

১৯৭২ সালের ৮ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক যুক্তরাজ্য সফর ও তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী স্যার এডওয়ার্ড হিথ এবং তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও দুইবারের প্রধানমন্ত্রী স্যার হ্যারল্ড উইলসনের সঙ্গে তার বৈঠকের ৫২ বছর পূর্তিতে লন্ডনের বাংলাদেশ হাইকমিশন সম্প্রতি এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

মন্ত্রী ৮ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর যুক্তরাজ্য সফরকে দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের একটি মাইলফলক হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, শেখ মুজিবুর রহমান তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে বাঙালি জনগণের নাগরিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক অধিকার আদায়ের জন্য জীবনের অধিকাংশ সময়ই সংগ্রাম করতে গিয়ে ১৪ বছর কারাগারে কাটিয়েছেন এবং ১৯৭১ সালে দেশের স্বাধীনতায় নেতৃত্ব দিয়েছেন।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত অন্যান্য সংসদ সদস্য ও লর্ডসরাও চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অভূতপূর্ব বিকাশ ও উন্নয়নের প্রশংসা করেন।

অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপ অন ইন্ডিয়ার (ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট) প্রেসিডেন্ট ব্যারনেস ভার্মা, অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপ অন বাংলাদেশের ভাইস চেয়ার টম হান্ট এমপি ও আফজাল খান এমপি, ডিসিএমএস বিষয়ক সেক্রেটারি অব স্টেটের সাবেক পার্লামেন্টারি প্রাইভেট সেক্রেটারি পল ব্রিস্টো এমপি, শ্যাডো এসএনপির মুখপাত্র (হেলথ অ্যান্ড সোশ্যাল কেয়ার) মার্টিন ডে এমপি, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বিষয়ক অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপের ভাইস চেয়ার লর্ড বোয়াটেং, ওয়ার্ক অ্যান্ড পেনশন সিলেক্ট কমিটির চেয়ারম্যান স্যার স্টিফেন টিমস এমপি, অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপ অন ইন্ডিয়া (ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট) এর ভাইস চেয়ার ওয়াটফোর্ডের লর্ড ডেভিড ইভান্স, পররাষ্ট্র বিষয়ক অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপের ভাইস চেয়ার ব্যারোনেস উদ্দিন কনজারভেটিভ, লেবার ও এসএনপি দলগুলোর প্রতিনিধিত্ব করেন।

হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম বলেন, ‘কনজারভেটিভ ও লেবার পার্টির নতুন প্রজন্মের রাজনীতিবিদদের স্মরণ করিয়ে দিতে বাংলাদেশ হাইকমিশন গত ৫ বছর ধরে ৮ জানুয়ারির ঐতিহাসিক সফর উদযাপন করে আসছে।

এই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানই ১৯৭২ সালের ৮ জানুয়ারি যুক্তরাজ্য সফর এবং দুটি ঐতিহাসিক বৈঠকের মাধ্যমে আজকের গতিশীল বাংলাদেশ-যুক্তরাজ্য সম্পর্কের ভিত্তি স্থাপন করেছিলেন।’
যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কে দোরাইস্বামী বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বলেন, ভারতের জনগণের কাছে বঙ্গবন্ধুকে একজন ক্যারিশম্যাটিক ও দূরদর্শী নেতা হিসেবে গণ্য করা হয়।

বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি গণতান্ত্রিক ও ধর্মনিরপেক্ষ বাংলাদেশ রূপকল্প বাস্তবায়নে জাতিকে প্রশংসনীয়ভাবে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। আমরা বিশ্বাস করি, বাংলাদেশ ও ভারতের গণতন্ত্র, প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা নিশ্চিতভাবে উভয় দেশের সঙ্গে দীর্ঘদিনের অংশীদারত্বের কারণে যুক্তরাজ্যের নিজস্ব প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়ন বজায় রাখতে সহায়তা করবে।

আরেক বিশেষ অতিথি এবং অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপ অন ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্টের ভাইস চেয়ার লর্ড বোয়াটেং বঙ্গবন্ধুকে অন্যতম ক্যারিশম্যাটিক নেতা হিসেবে অভিহিত করে বলেন, ‘১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ন্যাম শীর্ষ সম্মেলনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্ব বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে।’

লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশন জানায়, সুলতান মাহমুদ শরীফ, সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক এবং সৈয়দ মোজাম্মেল আলীসহ ব্রিটিশ-বাংলাদেশি কমিউনিটির সদস্যরা বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৮ জানুয়ারি সফরের চমৎকার স্মৃতির বর্ণনা দেন।

সর্বশেষ - খবর

ব্রেকিং নিউজ :